সোহেল হোসেন লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি: লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে নিম্নমানের কাজের অভিযোগ এনে সড়ক নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দিয়েছে গ্রামবাসী। শনিবার (১০ এপ্রিল) দুপুরে উপজেলার কেরোয়া ইউনিয়নের ফয়েজ উল্যা মিজি বাড়ী, নগদিব বেপারি বাড়ি ও দেওয়ান বাড়ি এলাকার বাসিন্দারা কাজ বন্ধ করে দেয়।
স্থানীয় সরকার প্রকৌশল বিভাগ (এলজিইডি) রায়পুর উপজেলা কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, প্রায় ৭০ লাখ টাকা ব্যয়ে কেরোয়া ইউপির এক প্যাকেজে এক কিলোমিটারের তিনটি রাস্তা নির্মাণ কাজ শুরু হয় মাস চারেক আগে। কাজটি পেয়েছে লক্ষ্মীপুরের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান রিয়াজ অ্যান্ড ব্রাদার্স। তাদের পক্ষে কাজটি তদারকি করছেন রায়পুরের স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা কৌশিক সোহেল।
ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ নেতা শামছুল ইসলাম মাস্টার, ফারুক রহমানসহ স্থানীয় কয়েকজন জানান, এ রাস্তাগুলো দিয়ে তিনটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীসহ প্রতিদিন রায়পুর-রামগঞ্জ ও চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ উপজেলার প্রায় ৪০০-৫০০ মানুষ চলাচল করে। রাস্তাটি পাকা করার টেন্ডার বহুদিন আগে হলেও ঠিকাদার এত দিন কাজ করেনি। করোনার অজুহাতে ঠিকাদার এত দিন না এলেও হঠাৎ গত বৃহস্পতিবার (৮ এপ্রিল) বিকেলে রাস্তাটিতে নামমাত্র নিম্নমানের বালু ও ইট দিয়ে কাজ শুরু করেন। এর প্রতিবাদে গ্রামের লোকজন সড়কের কাজ বন্ধ করে দেয়।
ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের দায়িত্বশীল কয়েকজন মিস্ত্রি জানান, রাস্তার কাজ বন্ধ করার বিষয়টি সাথে সাথে ঠিকাদারকে জানালেও তিনি আসেননি। ইট পরিমাণে কম দিয়েছেন, তবে নিম্নমানের কাজের অভিযোগ ঠিক নয় বলে তারা দাবি করেন।
রায়পুর উপজেলা এলজিইডির উপ-সহকারী প্রকৌশলী তাজুল ইসলাম বলেন, ‘কাজ বন্ধের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে স্থানীয়দের বলেছি, যেখানে কাজ খারাপ হচ্ছে, সেগুলো ঠিক করে দেয়া হবে। কিন্তু তারা কোনো কথাই শুনলেন না। কাজ বন্ধ করে দিয়েছেন।’
ঠিকাদার সহকারী কৌশিক সোহেল বলেন, ‘গ্রামবাসী না বুঝেই রাস্তার কাজ বন্ধ করে দিয়েছে। সমস্যা সমাধানে শনিবার রাতে গ্রামবাসীদের সাথে আলোচনা করা হবে।’
এদিকে রোববার সকালে সরেজমিনে রাস্তায় গিয়ে স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে বিষয়টি সমাধানের চেষ্টা করার কথা জানিয়েছেন রায়পুর উপজেলা প্রকৌশলী হারুনুর রশিদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *