মিরু হাসান বাপ্পী
আদমদিঘী (বগুড়া) প্রতিনিধিঃ

বগুড়ার সান্তাহার শহরের প্রভাবশালী ব্যবসা প্রতিষ্ঠান আজমেরী গ্রুপের বিরুদ্ধে ভারত থেকে মেয়াদ উত্তীর্ণ, পোকা আক্রান্ত ও খাবার অযোগ্য গম আমদানী করার অভিযোগ উঠেছে।

জানা গেছে, আজমেরী ফ্লাওয়ার মিলের মালিক রাকেস সাহা দেশীয় উৎস থেকে প্রাপ্ত গম দিয়ে আটা, ময়দা ও সুজি উৎপাদন করে আসছেন। এমন অবস্থায় হঠাৎ করে দেশীয় গমের দাম চড়া এবং প্রয়োজনীয় পরিমাণ না মেলার অজুহাতে গম আমদানীর সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন। সম্প্রতি এই প্রতিষ্ঠান ভারতীয় গমের এলসি (লেটার অব ক্রেডিট) খোলেন। তার এলসি করা গম ভারতের হরিয়ানাসহ বিভিন্ন প্রদেশ থেকে রেলওয়ে ওয়াগনের মাধ্যমে আসছে। গত কয়েক দিন ধরে সান্তাহার জংশন স্টেশনের রেলওয়ে মালগুদাম পয়েন্টে খালাস করা হচ্ছে গমগুলো।

রেলওয়ে মালগুদাম পয়েন্টে সরেজমিন দেখা যায় গমগুলোর অধিকাংশ ২০১৮-২০১৯ সালের এবং পোকা আক্রান্ত ও খাবার অযোগ্য। গমের বস্তার ভিতরে-বাহিরে বিচরণ করছে কালো রংয়ের অসংখ্য পরিমাণ পোকা। ভারত থেকে গম বোঝাই করে আসা প্রতিটি প্রায় ৬০ মেট্রিক টন%8র ৮৪ ওয়াগনে (দুই র‍্যাক) করে ইতিমধ্যে প্রায় পাঁচ হাজার মেট্রিক টন গম খালাস করা হয়েছে। আরো পাইপ লাইনে রয়েছে বলে জানা গেছে।

সাধারণ মানুষ পোকা আক্রান্ত গমগুলোকে খাবার অযোগ্য বলে জানালেও আমদানীকারক প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজার গম গুলো খুব ভাল মানের বলে দাবী করেন। মেয়াদ উত্তীর্ণ, পোকা আক্রান্ত ও খাবার অযোগ্য গম আমদানী বিষয়ে কথা বলার প্রয়োজনে আজমেরী গ্রুপের মালিক রাকেস সাহার মোবাইল ফোনে সংবাদকর্মীরা একাধিকবার ফোন করলেও তিনি ফোনকল না ধরে কেটে দেন।

গম খালাস পয়েন্টে কথা বলেন রাকেস সাহার ম্যানেজার আকরাম হোসেন। তিনি বলেন তার মালিক অপরিচিত কারো ফোনকল ধরেন না। তিনি আরো বলেন, আমদানী করা গম এরকমই হয়। গম পুরনো হলে সোড়া (স্থানীয় কথ্য নাম) পোকা লেগেই থাকে। এসব গম খুব ভাল মানের এবং খাবার উপযোগী বলে তিনি দাবী করেন। সচেতন সাধারণ মানুষজন এসব গম দেখে উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, সরকারি ভাবে এমন গম আমদানী করা হলে চারিদিকে হুলুস্থুল কান্ড বেধে যেত। কিন্তু ব্যক্তি পর্যায়ে হবার কারনে যেন দেখার কোন কর্তৃপক্ষ নেই।

এ বিষয়ে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মিঠু চন্দ্র অধিকারীর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, বিষয়টা আমার দপ্তরের নয়, তারপরও বলব যে, মেয়াদোত্তীর্ণ ও পোকা আক্রান্ত যে কোন শস্য দানা খাবার অনুপোযোগী।

আদমদীঘি উপজেলা নির্বাহী অফিসারের সাথে মোবাইল ফোনে সংবাদকর্মীরা যোগাযোগ করলে তিঁনি বলেন, সরেজমিন দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *