জসিম উদ্দিন জনি
আত্রাই (নওগাঁ) প্রতিনিধিঃ
নওগাঁর আত্রাইয়ে লক্কর ঝক্কর মার্কা বেইলীব্রিজ দিয়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে যানবাহন পারাপার হচ্ছে। ব্রিজের একাধিক স্থানে পাতাটন ভেঙে যাওয়ায় ব্রিজটি এখন এলাকাবাসীর জন্য মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে। প্রতিনিয়ত ঘটছে ছোট বড় দুর্ঘটনা। বেইলীব্রিজের পশ্চিম পাশ দিয়ে নির্মিত সেতু উম্মুক্ত করে দেয়ার আশায় এটির মেরামতও কর্তৃপক্ষ করছেন না।
৮ টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত আত্রাই উপজেলা। উপজেলার বুক চিড়ে বয়ে গেছে ঐতিহ্যবাহী আত্রাই নদী। নদীর দক্ষিণ পাশে রয়েছে উপজেলা পরিষদ, থানা, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সসহ ৫ টি ইউনিয়নের বৃহত জনগোষ্ঠি। উত্তর পাশে রয়েছে আত্রাই রেলওয়ে স্টেশন, উপজেলা সাব-পোস্ট অফিস, ফায়ার সার্ভিস স্টেশন ও কলেজসহ ৪টি ইউনিয়নের বৃহত জনগোষ্ঠি। উপজেলার বুক চিড়ে নদী প্রবাহমান হওয়ায় যুগ যুগ ধরে বিভক্ত হয়েছিল নদীর দুই তীরের মানুষ। ৯০ এর দশকে বেইলিব্রিজ স্থাপনের মধ্যদিয়ে বিভক্ত আত্রাইকে একিভূত করা হয়। এ বেইলীব্রিজ স্থাপনের মধ্যদিয়ে বিভক্ত আত্রাইকে একভূত করা হয়। সেই সাথে যোগাযোগ ব্যবস্থার ব্যাপক সুফল বয়ে আনে। প্রতিদিন শত শত যানবাহন এ ব্রিজ দিয়ে পারপার হয়ে থাকে। এ ছাড়াও পায়ে হেটে পারাপার হন হাজার হাজার পথচারী। ফলে এটি অত্যন্ত জনগুরুত্বপূর্ণ একটি ব্রিজ। কিন্তু দীর্ঘদিন থেকে প্রয়োজনীয় সংস্কারের অভাবে বেইলীব্রিজের বিভিন্ন স্থানে পাতাটন জং ও মরিচা ধরে তা ভেঙে যাচ্ছে। ইতিমধ্যেই ব্রিজের একাধিক জায়গায় পাতাটনে বড় বড় ছিদ্রের সৃষ্টি হয়েছে। এসব পাতাটন পরিবর্তন করে নতুন পাতাটন স্থাপন না করলে যে কোন মুহুর্তে বড় ধরণের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। ব্রিজটি ভেঙে গেলে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হবে এলাকাবাসীকে। সম্প্রতি এ বেইলীব্রিজের পশ্চিম পার্শে নির্মিত হয়েছে একটি পূর্ণাঙ্গ সেতু। সেতুটি যান চলাচলের জন্য এখনও উন্মুক্ত করা হয়নি। এটি উন্মুক্তের আশায় কর্তৃপক্ষ বেইলীব্রিজটিতে প্রয়োজনীয় সংস্কারের উদ্যোগও নিচ্ছেন না। ফলে জীবনের ঝুঁকি নিয়েই চলাচল করছে যানবাহন ও পথচারী।
আত্রাই নতুন বাজারের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আব্দুর রশিদ বলেন, আমাদের ব্যবসার মালামাল নওগাঁ থেকে আনতে হয়। এ ব্রিজ ভেঙে গেলে মালামাল আমাদের দোকান পর্যন্ত পৌঁছাতে চরম দুর্ভোগের শিকার হতে হবে। ভ্যান চালক আব্দুস শুকুর বলেন, রাতের বেলায় ব্রিজটিতে কোন আলোর ব্যবস্থা নেই। তাই লোকজন পারাপার হতে রাতের অন্ধকারে ভেঙে যাওয়া পাতাটনে পা ঢুকে অনেকে আহত হচ্ছেন। আর আমরাও জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ভ্যানসহ বিভিন্ন যানবাহন চালাচ্ছি। উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মমতাজ বেগম বলেন, বেইলীব্রিজটি অত্যন্ত জনগুরুত্বপূর্ণ। দির্ঘদিন থেকে প্রয়োজনীয় সংস্কারের অভাবে এটি এখন লক্কর ঝক্কর মার্কা ব্রিজে পরিণত হয়েছে। এটি দ্রত সংস্কার না করলে বড় ধরণের দুর্ঘটনার সম্ভাবনা রয়েছে। আত্রাই থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবুল কালাম আজাদ বলেন, সমগ্র আত্রাই উপজেলার আইন শৃঙ্খলা রক্ষায় প্রতিনিয়ত আামদের এ ব্রিজ দিয়ে পারাপার হতে হয়। বর্তমানে ব্রিজের যে অবস্থা তাতে যে কোন সময় দুর্ঘটনা ঘটার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। ব্রিজটি ভেঙে গেলে লাখ লাখ জনসাধারণকে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হবে। সেই সাথে জননিরাপত্তা নিশ্চিত করতে আমাদেরও অভিযান পরিচালনা বিগ্ন ঘটবে। তাই বৃহত্তর জনস্বার্থে দ্রত বেইলীব্রিজের প্রয়োজনীয় সংস্কারের পদক্ষেপ গ্রহন করতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নজর দেয়া বিশেষ প্রয়োজন।v

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *