আব্দুস সামাদ বাচ্চু,আশাশুনি সংবাদদাতা:

আশাশুনি উপজেলার মরিচ্চাপ নদীর বেইলি ব্রিজ ভেঙে ইট বোঝাই ট্রাক নদীতে উপজেলা সদরের সাথে সাতক্ষীরা জেলার যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। সোমবার সকাল সাড়ে দশটার দিকে এ দূর্ঘটনাটি ঘটে।

সরেজমিনে দেখা গেছে আশাশুনি উপজেলার মরিচ্চাপ নদীর উপর বেইলি ব্রিজ দীর্ঘদিন ধরে জরাজীর্ণ অবস্থায় ছিল কোনরকম জোড়াতালি দিয়ে সড়ক ও জনপথ বিভাগ চলাচলের উপযোগী করে তোলে।

দীর্ঘদিন ধরে ব্রিজ সংস্কারের মাধ্যমে যোগাযোগ রক্ষা করা হয়েছিল এবং সড়ক ও জনপথ বিভাগের পক্ষ থেকে ব্রীজের দুই পাশে সাইনবোর্ডের মাধ্যমে সতর্ক করা হয়েছিল ৫ টনের বেশি কোন যানবাহন ব্রিজের উপর দিয়ে যাতায়াত করতে পারবে না। কিন্তু সোমবার সকালে সড়ক ও জনপথ বিভাগের নিয়ম-নীতির তোয়াক্কা না করে অতিরিক্ত লোড নিয়ে আশাশুনি সদরের শ্রীকলস গ্রামে অবস্থিত এমএমবি ব্রিকস হতে ৬হাজার ইট বোঝাই ট্রাক বেইলি ব্রিজের উপরে উঠে এবং কিছুদূর যেতে না যেতেই ব্রিজ ভেঙে যায় ও ট্রাক নদীগর্ভে পতিত হয়। এসময় ড্রাইভার ও হেলপার ঘটনাস্থল থেকে দ্রুত পালিয়ে যায়।

উপজেলা সদরের সাথে জেলার সরাসরি যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। জেলা শহরে যাওয়ার জন্য জরুরী রোগী সেবা বাধাগ্রস্ত হয়ে পড়েছে,কাঁচামাল,বাগদা চিংড়ির সহ বিভিন্ন প্রজাতির মাছ পরিবহনে বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। এ বিষয়ে আশাশুনি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এবিএম মোস্তাকিম এর নিকট জানতে চাইলে তিনি এ প্রতিবেদককে বলেন, আশাশুনি মরিচ্চাপ নদীর উপর বেইলি ব্রিজ দীর্ঘদিন ধরে অবহেলিতভাবে ছিল কোনরকম সংস্কার করে এই উপজেলার সাথে সাতক্ষীরা জেলার যোগাযোগ রক্ষা করা হয়েছিল।

কিন্তু ব্রিজে ভারী যানবাহন চলাচল নিষেধ থাকার পরও অতিরিক্ত লোড নিয়ে ইট বোঝাই ট্রাক যাওয়ার ফলে বেইলি ব্রিজটি ভেঙে যেয়ে এ জনপদের মানুষ এখন চরম ভোগান্তিতে পড়েছে। আমি সড়ক ও জনপথ বিভাগের কর্মকর্তার সাথে কথা বলেছি তিনি আশ্বস্ত করেছেন তিন থেকে চার দিনের মধ্যে ব্রিজটি মেরামত করে যোগাযোগ ব্যবস্থা স্বাভাবিক করা হবে।সওজ এর কর্মকর্তা ইটভাটা ও ট্রাকের মালিক আব্দুস সামাদকে জরিমানাসহ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণের ঘোষণা দেন। এ সময় উপজেলা চেয়ারম্যান অতিরিক্ত লোড বোঝাই যানবাহন যাহাতে ব্রিজের উপর দিয়ে না চলে তার জন্য সর্বসাধারণের নিকট আহ্বান জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *