নাহিদ মিয়া,মাধবপুর (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি :
হবিগঞ্জে মাধবপুর উপজেলা ৬নং শাজাহানপুর ইউনিয়নকে মহামারী করোনা ভাইরাস মধ্যে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে দিন রাত উন্নয়নমূলক কাজ করে যাচ্ছেন চেয়ারম্যান বাবুল হোসনে খান। আজ ০৯/০৫/২১ ইং রবিবার সকালে সুরমা চা-বাগান এলাকার ২০নং বিভাগের তালাউ টিলায় প্রায় লক্ষ্য টাকার কাজে সরস্বতী মন্দির নির্মাণ উদ্বোধন করেন । এছাড়া কিছু দিন আগে উচু পাহাড় কেটে রাস্তাঘাট করে দেন পথচারীদের জন্য । আজ বিভিন্ন এলাকায় ঘুরে জানা গেছে, বাবুল হোসেন খান চেয়ারম্যান হবার পর গরিবের মুখে হাসি ফুটেছে। গরিবের ন্যায অনুদান পাওয়া যাচ্ছে। চা-শ্রমিকদের কথা চিন্তা করে রাস্তাঘাট ও যোগাযোগ ব্যবস্থা এবং ছাত্র/ছাত্রীদের জন্য বিদ্যালয়ে ৪টি পাখা, বিধবা বয়স্কভাতা ব্যবস্থা করে দেন। সুভাষ তন্তবায় বলেন, গত ১০ বছরে যা সম্ভব হয় নাই, এখন সম্ভব হয়েছে। চেয়ারম্যান হবার পর, তিনি দেশের এই ক্রান্তি-লগ্নে, সন্তাস ও মাদকমুক্ত সমাজ এবং আধুনিক ইউনিয়ন গড়ার কারিগর। সৎ, যোগ্য, ন্যায় বিচারক,অন্যায়ের প্রতিবাদকারী,মাধবপুরের গৌরব, শাহজাহানপুর ইউনিয়নের উজ্জল নক্ষত্র,জনগনের সবার পরিচিত মুখ,গরীব দুখীর বন্ধু বাবুল হোসেন খান ।
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার পরিকল্পনা মোতাবেক গ্রামকে শহরে পরিণত করার জন্য সরকারী সম্পদের শতভাগ সুষম বণ্টন, পরিকল্পিত রাস্তা, ব্রিজ ও কালভার্ট নির্মাণ, সড়কে বাতি স্থাপন, রাস্তার ধারে পথচারীদের বসার স্থান সহ বৃক্ষরোপন স্যানিটেশন ও স্বাস্থ্যখাতে উন্নয়ন, কৃষকদের সর্বোচ্চ সুবিধা প্রদান, পরিচ্ছন্ন হাট-বাজার, শিক্ষা ও সংস্কৃতিতে অগ্রগতি, অপরাধ ও মাদক প্রবণতা কমিয়ে আনা, শতভাগ বিদ্যুতায়নসহ স্বচ্ছ এবং জবাবদিহিতার মাধ্যমে ন্যায়ভিত্তিক সমাজ গঠনের মাধ্যমে হবিগঞ্জ জেলার মাধবপুর উপজেলার ঐতিহাসিক ৬নং শাহজাহানপুর ইউনিয়নকে মডেল ইউনিয়ন হিসেবে গড়ে তোলার চেষ্টা করে যাচ্ছেন চেয়ারম্যান বাবুল হোসেন খান।
বাবুল হোসেন খান বলেন, ‘জনগণ উন্নয়ন চায়, বেঁচে থাকার গ্যারান্টি চায়, স্বাভাবিকভাবে জীবনযাপনের নিশ্চয়তা চায়, তাই নৌকার পক্ষে গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছে। জনগন আমাকে এই জায়গা করে দিয়েছে, আপনাদের সুখে-দুঃখে সব সময় আমি পাশে আছি ও থাকব। সবার সহযোগিতা পেলে আমি,৬নং শাহজাহানপুর ইউনিয়নকে মডেল ইউনিয়নে রূপান্তর করব।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *