ফরিদুল ইসলাম নয়ন (নারায়ণগঞ্জ সদর প্রতিনিধি) আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন উপলক্ষে নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার দেলপাড়ায় এক প্রস্তুতিমূলক সভা করেন কুতুবপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও নৌকা প্রতীক পদপ্রার্থী মনিরুল আলম সেন্টু।

১১ই অক্টোবর (সোমবার) রাতে নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার কুতুবপুর ইউনিয়নের দেলপাড়ার মীরকুঞ্জ কমিউনিটি সেন্টারে এই প্রস্তুতিমূলক সভা অনুষ্ঠিত হয়।

এই সময় মনিরুল আলম সেন্টু বলেন, এখন আমি নৌকার মাঝি, আমার দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ। আমার নেতা শামীম ওসমান। আপনাদের কাছে আমি পদ পদবী চাই না। আমার দরকার নেই। আমি শুধু চাই, আপনারা এমন কিছু করেন, যাতে ইউনিয়নের ৮০ শতাংশ ভোট নৌকায় পড়ে। শামীম ওসমানের যাতে কোন বদনাম না হয়, সে জন্য আপনাদের কাছে সহযোগীতা চাচ্ছি।’

তিনি আরোও বলেন, ‘আমি সবচেয়ে বেশি কৃতজ্ঞ শামীম ওসমানের প্রতি। আমি স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে ৩ বার নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করে জয়লাভ করেছি। কুতুবপুরের মানুষ আমাকে দলমত নির্বিশেষে ৩ বার ভোট দিয়ে চেয়ারম্যান বানিয়েছে। ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ৬ মাস পূর্বে মাননীয় সংসদ সদস্য শামীম ওসমানের কাছে গিয়ে ছিলাম। তাকে বলেছিলাম, নৌকা যেই পাবে, আমি তাঁর বিরুদ্ধে নির্বাচন করবো না। কিন্তু তিনি আমাকে এতটাই বিশ্বাস করেন আমি ভাবতেও পারিনি। সর্বশেষ এমপি মহদয় আমাকে বললেন, ‘তুমিই নির্বাচন করবে বাকিটা আমাদের দায়িত্ব’। সে অনুযায়ী, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক মহদয় আলোচনা করে আমাকে নৌকার প্রার্থীতা দিয়েছে। এমপি সাহেব আমার জন্য যা করেছেন, এটা আসলে কেউ করে না। আমি দেখি নাই।’

মনিরুল আলম সেন্টু আরও বলেন, ‘আমি যেহেতু সরাসরি দলে ছিলাম না। অনেকেই আমার বিরুদ্ধে বলতে পারে, আমি তাদেরকে বলবো, সরাসরি আমাকে প্রশ্ন করুন। আমি উত্তর দিতে রাজি আছি। আমি বিগত ৫ বছর শামীম ওসমান সাহেবের নেতৃত্বে এই ইউনিয়নের সকল উন্নয়ন কর্মকাণ্ড পরিচালনা করেছি। আমি চেষ্টা করেছি। আমাদের এমপি মহদয়ের যেন, কোন বদনাম না হয়। যদি কেউ কোন ধরণের সন্ত্রাস, চাঁদাবাজী, মাদক করে, তাদেরকে আমি ব্যবস্থা নিয়েছি। আমি কোন মাদক ব্যবসায়ী, চাঁদাবাজের সাথে আপোষ করিনি।’

মনিরুল আলম সেন্টুর বক্তব্যের আগে ইউনিয়ন ও থানা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা তাকে সমর্থন করেন।
ইউনিয়ন আওয়ামী আওয়ামী লীগের সভাপতি জসিম উদ্দিনের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন জেলা কৃষক লীগের সভাপতি ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মো. নাজিম উদ্দিন আহমেদ, ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মোস্তফা কামাল, ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মঞ্জুরুল ইসলাম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এইচ এম ইসহাক, স্বেচ্ছা সেবক লীগের নেতা মীর হোসেন মীরু।
অন্যান্যদের মধ্যে আরোও উপস্থিত ছিলেন ১ ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি সালাউদ্দিন ভূইয়া, সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ হোসেন, ২নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি আলাউদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক আলম, ৩নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম রাহাদ ও ছাত্রলীগ, যুবলীগ, কৃষকলীগের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply