কক্সবাজার জেলা প্রতিনিধিঃ

কক্সবাজারে বিজিবির সদস্যরা দলবেঁধে ধর্ষণ করেছে দাবি করা নারীর বিরুদ্ধে করা মানহানির মামলায় আদালতে আত্মসমর্পণের পর জামিন পেয়েছেন সেই এনজিও কর্মী।

বৃহস্পতিবার (১৪ জানুয়ারি) কক্সবাজার জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম তামান্না ফারাহ’র আদালতে আত্মসমর্পণ করেন। এরপর তার জামিন আবেদন করলে আদালত মঞ্জুর করে বলে জানিয়েছেন বাদীপক্ষের আইনজীবী সাজ্জাদুল করিম।

জামিনপ্রাপ্ত আসামি ফারজানা আকতার টেকনাফের হ্নীলা ইউনিয়নের ব্লাস্ট নামের এক এনজিও’র কর্মী।

উল্লেখ্য,গত বছরের ৮ অক্টোবর কক্সবাজার-টেকনাফ সড়কের বিজিবির দমদমিয়া চেকপোস্টে তল্লাশির সময় তাকে ‘দলবেঁধে ধর্ষণ করা হয়’ বলে অভিযোগ তোলেন ফারজানা।

তার এ দাবির প্রেক্ষিতে ব্যাপক সমালোচনার মধ্যে গত ১০ নভেম্বর কক্সবাজারের জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম তামান্না ফারাহের আদালতে বিজিবির টেকনাফের দমদমিয়া চেকপোস্টের দায়িত্বপ্রাপ্ত জেসিও নায়েব সুবেদার মোহাম্মদ আলী মোল্লা বাদী হয়ে ১০০ কোটি টাকার এ মানহানি মামলা করেন।

২২ নভেম্বর টেকনাফ থানার পরিদর্শক (অপারেশনস) শরিফুল কক্সবাজার জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম আদালতে জমা দেওয়া তদন্ত প্রতিবেদনে ‘ধর্ষণের কোনো আলামত পাওয়া যায়নি’ উল্লেখ করেন। সেদিনই শুনানি শেষে ১৪ জানুয়ারি আদালতে হাজির হওয়ার জন্য আসামির বিরুদ্ধে সমন জারি করেছিলেন জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম মুহা. হেলাল উদ্দিন।

Leave a Reply