মো:আজিজুর বিশ্বাস,লোহাগড়া নড়াইল প্রতিনিধিঃ

নড়াইল জেলার কালিয়া উপজেলার ১১নং পেড়লী ইউনিয়নের উত্তর খড়লিয়া চর পাড়া গ্রামের মৃত গহুর মোল্ল্যার স্ত্রী হতদরিদ্র ভুমিহীন বিধবা তহমিনা বেগমের শেষ সম্বল সরকারি জমি টুকু কেড়ে নিয়েছেন ও বসত ঘরটা ভেঙ্গে দিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

সরেজমিনে গিয়ে বিধবা তহমিনা বেগমের সাথে কথা হলে তিনি সাংবাদিকদের বলেন আমি দীর্ঘ ২০বছর যাবৎ এই সরকারি জমিতে থাকি, এর পাশের জমির মালিক ছিলো ইসমাইল মিনা তিনি মারা যায় এখন তার ছেলেরা নাকি জমি বিক্রি করে দিচ্ছেন, আর এই জমি কিনেছেন শুনলাম মো: তুকাব শেখ, পিং মৃত ইনতাজ শেখ, মাউদ মোল্ল্যা,পিং অজ্ঞাত, ও ইনামুল মোল্ল্যা,পিং মনিরুল মোল্ল্যা, এসময় বিধবা তহমিনা বেগম আরো বলেন, উক্ত তিনজন ব্যক্তি আমাকে অনেক দিন যাবত বলে ওই যাইগা থেকে আমার বসত ঘরটা সরাতে,তারা বলেন যাইগা আমরা কিনেছি,তখন তহমিনা বেগম তাদের কে বলেন আমি বিধবা মানুষ আমার ছেলে সন্তান নেই প্রতিবন্ধী মেয়েটা নিয়ে কোথায় যাবো, এরপর তহমিনা বেগম বলেন একদিন আমি বাড়ি না থাকায় দিনের বেলাতে আমার বসত ঘরটা ভেঙে ফেলেছে তুকাব মেম্বার, মাউদ মাস্টার,ও ইনামুল সহ আরো অনেকে, এখন আমি খড়লিয়া সরকারি প্রাইমারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে রাত যাপন করতেছি, আমাকে যদি ওই সরকারি যাইগাতে থাকতে দেওয়া না হয় এই প্রতিবন্ধী মেয়ে কে নিয়ে মরা ছাড়া উপায় নেই।

এসময় উপস্থিত নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন লোকের সাথে কথা হলে তারা বলেন তহমিনা বেগম একজন অসহায় ব্যক্তি সে যদি নিজে কাজ করে খাবার আনতে পারেন তবে খায়, না হলে না খেয়ে থাকতে হয় তার,এসময় তারা আরো বলেন এখানকার স্থানীয় ওই লোক গুলা অবিচার করতেছেন এই মলিহার সাথে এর একটা প্রতিকার হওয়া উচিৎ।

এ বিষয় নিয়ে তুকাব শেখ, মাউদ মাস্টার, ও ইনামুল মোল্ল্যার সাথে কথা হলে তারা বলেন আমরা জমি টাকা দিয়ে কিনেছি, ও তহমিনা বেগমের সাথে কথা বলে তার ঘর সরিয়ে দিছি, এবং তহমিনার ঘর করার একটা ব্যবস্তা করে দেবো।

মো:আজিজুর বিশ্বাস,লোহাগড়া নড়াইল প্রতিনিধি।
মোবাইল ঃ০১৯২০২৮১৭৮৭ /০১৭০৫১৯৩০৩০

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *