মোঃ আবুল হোসেন সাজু মৌলভীবাজার জেলা প্রতিনিধিঃ
মৌলভীবাজার জেলার আওতাধীন কুলাউড়া উপজেলায়
জীবন মৃত্যুর মাঝখান দিয়ে আমাদের পথচলা। আজ কুলাউড়া উপজেলার ব্রাহ্মণবাজার এলাকায় এক হৃদয়বিদারক ঘটনা ঘটে। একটি ট্রাক রাস্তার পাশে গাছের সাথে সম্মুখ ধাক্কায় দুমড়েমুচড়ে যায় কিন্তু ভাগ্যক্রমে ট্রাকের হেল্পার আহত অবস্থায় বাহিরে ছিটকে পড়েন এবং ট্রাকের চালক গাড়িতেই আটকা পড়েন। তার পা গাড়ির ইঞ্জিনে আটকে থাকে। এই সময়ে পুলিশ অফিস মৌলভীবাজার হতে মিটিং শেষে আসার পথে এই হৃদয়বিদারক ঘটনার সম্মুখীন হই আমি এবং কুলাউড়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সাদেক কাওসার দস্তগীর স্যার ও জুড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ সঞ্জয় চক্রবর্তী

উক্ত চালকের আর্তনাদে পাষাণের হৃদয় নাড়া দিয়ে উঠার উপক্রম হয়েছিল। সে বারবার বলতেছিলো – ও আল্লাহ আমারে বাঁচাও। স্যার, আমারে এখান থেকে বের করেন, আমারে বাঁচান, আমি আর সহ্য করতে পারছিনা, আমার পা টা ভাইঙ্গা গুড়া অইয়া গেছে। আমার জীবন টা শেষ হয়ে যাইতাছে, স্যার স্যার

এই ছিল উদ্ধারের আগমুহূর্ত পর্যন্ত তাঁর ভাষ্য।

পরিশেষে স্থানীয় জনগণ এবং ফায়ার সার্ভিসের সহযোগিতা নিয়ে গাড়ির চালককে উদ্ধার করে তাৎক্ষণিক উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স কুলাউড়াতে প্রেরণ করি।

এই হৃদয়বিদারক ঘটনা থেকে আমার উপলব্ধি –

ঐ মুহূর্তে গাড়ির চালক তার সবকিছুর বিনিময়ে বাঁচতে চায়, শুধু বাঁচতে চায়। আমাদের দৈনন্দিন জীবনে সকল চাহিদার চেয়ে সবচেয়ে বড় চাহিদা হলো আমাদের সুস্থ থাকা। শারীরিক সুস্থতা সবচেয়ে বড় সম্পদ। সৃষ্টিকর্তার অশেষ কৃপায় এরকম দুর্ঘটনায় সে প্রাণে বেঁচে যায়। সৃষ্টিকর্তার কাছে প্রার্থনা- যাত্রাপথে আর কারো যেন এরকম দুর্ঘটনায় পড়ে অসহনীয় যন্ত্রণার স্বীকার না হতে হয়। ঈশ্বর সবার মঙ্গল করুন।

উল্লেখ্য, রোববার (২৫ এপ্রিল) বিকেলে কুলাউড়া উপজেলার ব্রাহ্মণবাজারের মিশন এলাকয় ইটবোঝাই একটি ট্রাক বিপরীতমুখী আরেকটি ট্রাকের সাথে সংঘর্ষ থেকে বাঁচতে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সড়কের পাশে গাছের সাথে ধাক্কা লেগে চালকসহ তিনজন গুরুতর আহত হন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *