নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
কুষ্টিয়া সদরের বটতৈল গ্রামের ভাটাপাড়ায পূর্ব শত্রুতার জের ধরে মোবাইলে ডেকে নিয়ে হত্যার উদ্দেশ্যে মারপিট, গুরুত্বর জখম ও প্রান নাশের হুমকির ঘটনায় কুষ্টিয়া মডেল থানায় অভিযোগ করেছেন কাউছার।

কুষ্টিয়া বটতৈল ভাটাপাড়া গ্রামের বেল্লাল হোসেনের ছেলে কাউছার (১৮) বাদি হয়ে শনিবার (১০এপ্রিল) অভিযোগ করেন। তিনজনের নাম উল্লেখ করে অভিযোগ করেন। অভিযোগে আসামিরা হচ্ছে একই গ্রামের ইশারতের ছেলে জিহাদুল (১৯) নবীনের ছেলে সাইদুল (২৩) মৃত অমূল্যর ছেলে ইশারত(৫৫)।

কাউছার অভিযোগে উল্লেখ করেন আসামিদের সাথে আমাদের পূর্ব শত্রুতা রয়েছে। পূর্ব ত্রুতার জের ধরে আমাকে জিহাদুল সুকৌশলে গত ১০/০৪/২১ ইং তারিখে রাত অনুমান ৮ ঘটিকার সময় ফোন করে ডাকে জিহাদুল তার বাড়ির সামনে আমি সরল বিশ্বাসে জিহাদুল এর বাড়ির সামনে যায় বাড়ির সামনে যাওয়া মাত্রই আমাকে সাইদুল, ইশারত সহ ২/৩ জন ধারালো হাসুয়া চাকু,দেখায় আমাকে মুখ চেপে ধরে জিহাদুলের বাড়ির সাথে গাছের সঙ্গে দড়ি দিয়া বেঁধে লোহার রড দিয়ে আমাকে হত্যার উদ্দেশ্যে সাইদুল, ইশারত এলোপাতাড়ি ভাবে মারধর করতে থাকে আমার সমস্ত শরীলে রক্তাক্ত জখম করে। তাতে আমার ডান হাতের কবজি এবং পিঠের স্থানে রক্তাক্ত জখম করে। সাইদুল ও ইশারত আমাকে হত্যার উদ্দেশ্যে ধারালো হাসুয়া দিয়া হত্যা চেষ্টার কালে আমি শোর চিৎকার করলেও সাইদুল ও ইশারত আমাকে কঠোরভাবে বাটাম এবং লোহার রড দিয়ে মারধর করতে থাকে। আমার শোর চিৎকারে পথচারী লোকজন আমাকে উদ্ধার করে কুষ্টিয়া সদর হাসপাতাল পাঠিয়ে দেয় আমাকে মারপিট করার সময় আমার গলায় থাকা আট আনা ওজনের স্বর্ণের চেইন ছিনিয়ে নেয় জিহাদুল এবং আমার প্যান্টের পকেট থেকে নগদ ৩২০০/ টাকা ছিনিয়ে নেন সাইদুল। আসামিরা হুংকার দিয়ে বলতে থাকেন তোকে হত্যা করে লাশ গুম করে দেবো এই হুমকি দিয়ে চলে যায়। আমি এবং আমার পরিবার বর্তমানে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *