মোঃমেহেদী হাসান,কোটচাদপুর প্রতিনিধিঃ
করোনা ভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলায় সারাদেশে সরকার ঘোষিত ৭ দিনের লকডাউন চলছে। আর এই লকডাউনে দ্বিগুণের চেয়েও বেশি সকল প্রকার সবজির দাম বেড়েছে ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুর উপজেলার সকল সবজি বাজারে। হঠাৎ দাম বাড়ায় বিপাকে পড়েছে খেটে খাওয়া মানুষসহ নিম্ন আয়ের মানুষগুলো। এদিকে চাহিদার তুলনায় আমদানি কম হওয়ায় দাম বেড়েছে বলে জানান পাইকারি বাজারের সবজি ব্যবসায়ীরা।
শনিবার সকালে কোটচাঁদপুর উপজেলার সকল কাঁচা বাজার ঘুরে দেখা গেছে, লকডাউনের আগের দিনে প্রতিটি সবজির দাম যা ছিলো, তা লকডাউনের দুই তিন দিন পেরিয়ে যেতেই সরবরাহ কম অজুহাতে দ্বিগুণ বেড়েছে সব ধরনের সবজির দাম। দুই তিন দিনের ব্যবধানে ৪০ টাকা কেজি দরের বেগুন এখন বিক্রি হচ্ছে ৭০/৮০ টাকা কেজি দরে। ৩০টাকা কেজির শসা বিক্রি হচ্ছে ৭০/৯০ টাকা। পটল ২৫/৩০থেকে বিক্রি হচ্ছে ৬০ টাকা কেজি দরে,ঢেঁড়স ছিলো ২৫ টাকা এখন তা বিক্রি হচ্ছে ৫০/৬০ টাকা।করোল্লা৪০থেকে এখন বিক্রি হচ্ছে ৬০ টাকা কেজি দরে এছাড়া সবধরনের সবজির দাম দ্বিগুণ বা তার অধিক বেড়েছে।
সবজি কিনতে আসা রিক্সা চালক ও মধ্যবিত্ত পরিবারের মানুষ গুলো বলেন, লকডাউনের কারণে তেমন রোজগার নেই। এদিকে আজকে বাজার করতে এসে দেখি সব সবজির দাম বেড়েছে। আমরা গরীব মানুষ দিন আনি, দিন খাই এভাবে সবজির দাম বাড়লে আমরা পরিবার পরিজন নিয়ে কীভাবে বাঁচবো।
এবিষয়ে কয়েকজন সবজি ক্রেতার সাথে কথা হয় তারা বলেন, বাজারে সব জিনিসের দাম বেশি। হঠাৎ এতো দাম বাড়লে, আমরা সাধারণ মানুষ কীভাবে চলবো।
এমনবস্তায় সাধারন মানুষ প্রশাসনের কাছে বাজার মনিটরিং এর জোর দাবি জানাই,সাধারন, খেটে খাওয়া মানুষ গুলো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *