মোঃসবুজ সরকার সৌরভ ,ঘাটাইল, (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধিঃ

টাঙ্গাইল ঘাটাইল উপজেলায় এক নারীর মৃতদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।নিহতের নাম বানেছা বেগম (৪০)।সে উপজেলার সাগরদিঘী ইউনিয়নের কামালপুর গ্রামের শমসের আলীর মেয়ে।

আজ সোমবার (১৯ এপ্রিল) দুপুর সাগরদিঘী ইউনিয়নের কামালপুর গ্রামে নিহতের নিজ বাড়ীর থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়।এসময় লাশের গায়ে বিভিন্ন আঘাতের চিহ্ন দেখা যায়।প্রাথমিক ভাবে ধারণা করা হচ্ছে গতরাতে কোন এক সময় তাকে নির্যাতনের পর শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে।

নিহতের মা,এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়,স্বামী পরিত্যক্তা নিহত বানেছা বেগম দীর্ঘদিন ধরে গার্মেন্টসে চাকরি করে এক ছেলে ও এক মেয়ে নিয়ে গাজীপুরে বসবাস করতেন।ছেলে বাবলু বিয়ে করে শ্বশুর বাড়ি চলে যায়।এরইমধ্যে তার পরিচয় হয় মির্জাপুর উপজেলার বাশতৈল গ্রামের গাড়ি চালক খোকন মিয়ার সাথে।গোপনে বিয়েও করেন।বিয়ের কিছুদিন পরেই বুঝতে পারেন খোকন মিয়ার আসল উদ্দেশ্য।বিভিন্ন অজুহাতে বানেছার জমানো টাকা হাতিয়ে নিতে থাকে খোকন।একপর্যায়ে খোকনের হাত থেকে নিস্তার পেতে মেয়েকে নিয়ে চলে আসেন নিজ গ্রামে।পৈত্রিক জমিতে বাড়ি করে সেখানেই গত এক বছর ধরে মেয়েকে নিয়ে বসবাস করছিলেন।এর মধ্যে মেয়ে জান্নাতের বিয়ে দেন পার্শ্ববর্তী কালিহাতী উপজেলায়।তারপর থেকে নিজ বাড়িতে একাই বসবাস করছে নিহত বানেছা।এখানেও মাঝে মাঝে আসতো খোকন মিয়া এবং বিভিন্ন ভাবে নির্যাতন করতো টাকার জন্য।বাধ্য হয়ে কিছুদিন আগে খোকনের বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে আদালতে মামলাও করেন।তাতেও থেমে থাকেনি প্রতারক খোকন।বিভিন্ন ভাবে নিষেধ করা সত্বেও মাঝে মাঝেই আসতো বানেছার বাড়ি।গত দুইদিন যাবত এখানেই অবস্থান করছিলেন।

আজ দুপুরে নিহতের মা গেটে তালা দেখে সন্দেহ হলে প্রতিবেশীদের সহায়তায় তালা ভেঙে ঘরে কম্বল দিয়ে ঢাকা অবস্থায় বানেছার মৃতদেহ দেখতে পান।পরে স্হানীয়রা পুলিশকে খবর দিলে,সাগরদিঘী তদন্ত কেন্দ্রের এবং ঘাটাইল থানার পুলিশ এসে লাশ উদ্ধার করে।এই ঘটনার পর থেকে নিহতের স্বামী পলাতক রয়েছে।

এব্যাপারে সাগরদিঘী তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ(আইসি)জাকির হোসেন বলেন,লাশের গায়ে বিভিন্ন জায়গায় আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে।লাশের সুরতহাল রিপোর্ট শেষে পোস্টমর্টেমের জন্য শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

ঘাটাইল থানার ওসি(তদন্ত)সানোয়র হোসেন বলেন,লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য প্রেরণ করা হয়েছে।এব্যাপারে হত্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলেও তিনি জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *