নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
পাবনার চাটমোহরে কিশোরী (১৪) কে গণধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়েরের পর সোমবার (০৫ এপ্রিল) অভিযুক্ত এক আসামীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

গ্রেপ্তারকৃত আসামীর নাম মোঃ উদ্দিন ওরফে আলাউদ্দিন (৩০)। তিনি উপজেলার ফৈলজানা ইউনিয়নের বড় দুবলাপাড়া গ্রামের সেকেন আলীর ছেলে।

এ ঘটনায় পলাতক আরেক আসামী হলো একই গ্রামের সিরাজুল ইসলামের ছেলে মোহাম্মদ মাজীদ (৪০)।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, ভিকটিম কিশোরীর পিতা পেশায় একজন দিনমজুর। তার চার মেয়ে ও এক ছেলে। বড় দুই মেয়েকে বিয়ে দিয়েছেন। ছোট দুই মেয়ে ও ছেলে বাড়িতে থাকে। গত ২ এপ্রিল রাত দশটার দিকে ঢাকায় বড় বোনের কাছে নিয়ে যাওয়ার কথা বলে তার চাচাতো আলাউদ্দিন ও একইগ্রামের মাজিদ ওই কিশোরীকে পাবনার চর ভবানীপুর গ্রামে তাদের দূর সম্পর্কের আত্মীয় জনৈক মহিদুল ইসলামের বাড়িতে নিয়ে যায়। সেখানে পালাক্রমে তাকে ধর্ষণ করে আলাউদ্দীন ও মাজিদ।

পরে খোঁজাখুঁজির এক পর্যায়ে পরদিন ০৩ এপ্রিল এলাকাবাসীর সহযোগিতায় কিশোরীকে উদ্ধার করে বাড়িতে নিয়ে আসে কিশোরীর বাবা। পরে তার কাছ থেকে জানা যায় গণধর্ষণের ঘটনা। অবস্থা বেগতিক দেখে বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করে আলাউদ্দিনের পরিবার।

চাটমোহর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ আমিনুল ইসলাম জানান, মেয়েটির বাবা বাদী হয়ে সোমবার (০৫ এপ্রিল) থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। মামলার পর অভিযান চালিয়ে প্রধান আসামী উদ্দিন ওরফে আলাউদ্দিনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। পলাতক অপর আসামীকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। ভিকটিম কিশোরীকে ডাক্তারী পরীক্ষার জন পাবনা জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *