সোহেল রানা,যশোর প্রতিনিধিঃযশোরের শার্শা উপজেলার নাভারণ বাজার থেকে চুরি মামলার তিন আসামীকে আটক করেছে জেলা গোয়েন্দা শাখা (ডিবি) পুলিশ। এসময় চুরি হওয়া ১ ভরি ১১ আনা ৪ রতি স্বর্ণালংকার উদ্ধার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকালে আটককৃতদের যশোর আদালতে সোপর্দ করলে আদালত তাদের জেল হাজতে প্রেরনের নির্দেশ দেয়।

এর আগে বুধবার রাতে নাভারণ বাজার থেকে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ সদস্যরা তিন আসামীকে আটক করে।আটকরা হলেন, শার্শার কাশিয়াডাঙ্গা গ্রামের আনিছুরের ছেলে জনি (২১), নূর মোহাম্মদের ছেলে নুর আলম (৪২) ও শার্শার রাড়িপুকুর গ্রামের শাহজানের ছেলে মেহেদী হাসান (২৯)।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা জেলা গোয়েন্দা পুলিশের (এসআই) মফিজুল ইসলাম জানান,সম্প্রতি শার্শায় বিড়ি শ্রমিক ইস্রাফিল হত্যার এজাহারভুক্ত আসামী মেহেদী হাসানকে ঢাকার আশুলিয়া থেকে আটক করে।এসময় জিজ্ঞাসাবাদে জানতে পারেন এ হত্যার পিছনে একটি চুরির কাহিনী রয়েছে।একই গ্রামের ইসলামী ব্যাংক কর্মকর্তা রুহুল কুদ্দুসের বাড়ীতে ২০১৮ সালের জুলাই মাসের ২৩ তারিখ রাতে ঘরের তালা ভেঙ্গে স্বর্ণালংকার,নগদ টাকা চুরি করে হত্যার আসামী নুর আলমের ভাতিজা জনি ও মফিজ।নুর আলম ও আব্দুল আজিজ এ চুরির স্বর্ণালংকার নিয়ে নেয়।

এই ঘটনায় নিহত ইস্রাফিল জানতে পেরে তাদেরকে সমাজে প্রকাশ করে দেওয়ার হুমকি দেয়। যার প্রেক্ষিতে অন্যান্য কারনের সাথে এই চুরির কারণ যুক্ত হয়। এতে ইস্রাফিলকে মারার পরিকল্পনা করে আসামীরা।ঘটনাটির সত্যতা যাচাইয়ের জন্য রুহুল কুদ্দুসের বাড়ীতে খোঁজ নিয়ে সত্যতা পাওয়া যায় এবং ঘটনার রহস্য জেনে রুহুল কুদ্দুস বাদী হয়ে শার্শা থানায় মামলা দায়ের করে।পরে অভিযান চালিয়ে শার্শার নাভারণ থেকে তিন আসামীকে আটক করা হয়।

Leave a Reply