আমির হোসেন, গাজীপুর সিটি প্রতিনিধি:
রাজনীতির শুরুটায় অনেকটাই লেখাপড়ার পাশাপাশি বাবার কাছ থেকে যার কথা বলছি তিনি তৃণমূল রাজনীতি আইকন হিসেবে অনেকের কাছে জানতে পরিচিত যার নাম রেজাউল করিম রাসেল তিনি বর্তমান কালিয়াকৈর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক কালিয়াকৈর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, তার এই সাফল্যের শুরুটা বাংলাদেশ ছাত্রলীগের রাজনীতি থেকে।
রেজাউল করিম রাসেল এর সাথে তার রাজনৈতিক জীবনের এবং বর্তমান সময়ের জানা অজানা বিষয় কথা বললে তিনি দৈনিক তরুণ কন্ঠ পত্রিকার সাংবাদিক অজয় সরকার ঝুটন কে বলেন, আমার রাজনীতির আদর্শের প্রতীক জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও আমার মরহুম পিতা গাজী মোঃ সামান আহমেদ।
তৃণমূল পর্যায়ে রাজনীতি শিখেছি আমার বাবার কাছ থেকে তারই ধারাবাহিকতায় রাজনৈতি হয়ে উঠে আমার ধ্যান-জ্ঞান। এছাড়াও আমার মরহুম পিতার কাছ থেকে শিখেছি কিভাবে মানুষের সাথে মিলেমিশে থাকতে হয় এবং মানুষের সেবা করে হয় তাদের পাশে থেকে নিজেকে তাদের একজন মনে করা যায়। সেই আদর্শের আরেকজন হলেন আমার গর্ভধারিনী মা মরহুমা রওশন আরা বেগম ছিলেন একজন আদর্শ শিক্ষিকা কাছ থেকে শিখেছি নীতি এবং আদর্শ।
মা এবং বাবা সর্বদা একটি কথা বলতেন রাজনীতি যদি করতে চাও তবে ত্যাগ করতে শিখো তবে তুমি সমাজে রাজনীতি করতে পারবে।একজন আদর্শবান কর্মী হিসেবে জানিনা কতটুকু করতে পেরেছি, কিন্তু যারা আমার পাশে আছে সবাই আমাকে ভালোবেসে।
আমার বাবা সাবেক কালিয়াকৈর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন অনেক দিন, এছাড়াও তিনি ২২বছর চাপাইর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।
আমরা চার ভাই সবাই জনগণের সেবা নিয়োজিত রয়েছে বড় ভাই রশিদুজ্জামান বিপ্লব বর্তমানে জার্মানিতে অবস্থান করছেন তিনি প্রবাসীদের নিয়ে বিভিন্ন ধরনের কাজ করছেন,দ্বিতীয়জন সাইফুজ্জামান সেতু বর্তমান দ্বিতীয়বারের মতো চাপাইর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান‌ ও বাংলাদেশ চেয়ারম্যান এসোসিয়েশন এর সিনিয়র সহ-সভাপতি হিসেবে দায়িত্বে রয়েছেন। তৃতীয়জন ইলিয়াস কাঞ্চন কালিয়াকৈর উপজেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছে।
আমি ২০০৪ সালে ঢাকা কলেজ ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ২০০৫ সালে ছাত্রলীগকেন্দ্রীয় কমিটি উপ ছাত্র বৃত্তি সম্পাদক তারপর ২০১১ সালে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি দায়িত্ব পালন করেছি, ২০১৪সালে গাজীপুর জেলা আওয়ামী লীগের তৃণমূল প্রার্থী বাছাইয়ে ভোটের মাধ্যমে কালিয়াকৈর উপজেলা প্রার্থী নির্বাচিত হয় সেই নির্বাচনে কালিয়াকৈরবাসী আমাকে বিপুল ভোটে জয়যুক্ত করেন,দ্বিতীয়বার ২০১৯ সালে দেশরত্ন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাকে তার নৌকার প্রার্থী করে নির্বাচন করার সুযোগ প্রদান করে বিভিন্ন প্রতিকূলতার মাঝে সে নির্বাচনে পরাজিত হয় বর্তমান সময়ে দীর্ঘ ১৭বছর পর ২৬ নভেম্বর বৃহস্পতিবার কালিয়াকৈর আওয়ামী লীগের কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হয় সেখানে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সহ সকল নেতৃবৃন্দের আস্থার জায়গা থেকে আমাকে কালিয়াকৈর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব দেওয়া হয়।
কালিয়াকৈর উপজেলা বাসীকে নিয়ে তার ভাবনার কথা জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি রাজনীতি করে দেশ ও মানুষের সেবা করার জন্য জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও আমার পিতা মরহুম গাজী মো: সামান আহমেদ আদর্শে।
আমার বাবা সবসময় আমাকে একটা কথা বলতেন রাজনীতি যেন মানুষের সেবার জন্য হয় তবে তুমি রাজনীতি করতে পারবে তারই ধারাবাহিকতায় বর্তমান সময়ে তৃণমূল পর্যায়ে রাজনীতি অনেকটাই একক ভাবে চলছে,
যেহেতু মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও কালিয়াকৈর উপজেলাবাসী আমাকে সবাই দায়িত্ব দিয়েছে আমার প্রথম কাজ হবে ব্যক্তিলীগ থেকে সকলকে আওমীলীগ রাজনীতিতে আওয়ামী লীগের বঙ্গবন্ধুর আদর্শের রাজনীতি ফিরিয়ে আনা, এছাড়াও আরেকটি বড় সমস্যা পার্টি অফিস কেন্দ্রিক রাজনীতি না করার সেই সমস্যাকে দূর করে সবাইকে পার্টি অফিস কেন্দ্রিক রাজনীতি মুখি করা। বর্তমান সময়ে আমাদের সমাজে সবচেয়ে বড় সমস্যা হচ্ছে দুর্নীতি, মাদক, ইভটিজিং কালিয়াকৈর উপজেলাবাসীকে সাথে নিয়ে সেইসব সমস্যা থেকে এলাকাবাসীকে মুক্ত করা। আদর্শ সুন্দর সুশীল সমাজ গড়ার শপথ নিয়ে কাজ করছি তৃণমূল পর্যায়ে আমাদের মত যারা রাজনীতি করছে তাদের প্রতি মানুষের বিশ্বাসটা অনেকটাই কম সেই জায়গা থেকে আমি চেষ্টা করব আমাদের কর্মীসহ দেশের প্রতিটি নাগরিকের সমস্যা সম্পর্কে সর্বদায় পাশে থাকা এছাড়া আমি আমার জন্য ভালো নয় দেশ এবং দেশের মঙ্গলের সর্বোদায় কাজ করে যাব।
আমি উপজেলা চেয়ারম্যান থাকা অবস্থায় কালিয়াকৈর উপজেলাবাসীর সকল সমস্যার সমাধানের চেষ্টা করেছি এবং সামাজিক ধর্মীয় রাজনীতিক সকল অনুষ্ঠানেই নিজে উপস্থিত থাকার চেষ্টা করছি। বর্তমান সময়ে কালিয়াকৈর উপজেলা চেয়ারম্যান না থাকলেও আমি আগের ধারাবাহিকতায় নিজেকে সবসময় জনসেবায় নিয়োজিত রাখছি। প্রতিদিন সকালবেলায় কালিয়াকৈর উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে মানুষ ছুটে আসে আমার বাসায় আমি তাদের সাথে কথা বলি এবং কেউ যদি কোনো সমস্যা নিয়ে আসে সেটা সমাধানের চেষ্টা করি তাই জনগণ, কালিয়াকৈর উপজেলা আওয়ামী লীগের বর্তমান কমিটির সভাপতি মুরাদ কবির সম্পর্কে উনি বলেন তিনি অনেকদিন ধরে রাজনীতি করছেন এছাড়া তিনি সাবেক কালিয়াকৈর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দীর্ঘদিন দায়িত্ব পালন করেছেন রাজনীতির অভিজ্ঞতার দিক দিয়ে তিনি আমার চেয়ে অনেক সিনিয়র চেষ্টা করছে উনার কাছ থেকে অনেক কিছু শেখার। আপনারা সবাই আমার জন্য দোয়া করবেন যাতে আমি সবার সাথে মিলেমিশে কালিয়াকৈর উপজেলাবাসী ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার হাত সুদৃঢ় করার অঙ্গীকার করে দেশ এবং দেশের মানুষকে ভালো কিছু করতে পারি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *