আরিফুল ইসলাম ঝিনাইগাতী শেরপুর প্রতিনিধি :

শেরপুরের ঝিনাইগাতী থানাকে অপরাধ মুক্ত করতে জুয়া,বাল্যবিবাহ ও মাদক ব্যবসায়ীদের তথ্য দিয়ে সহযোগী করুন। তথ্য দাতার নাম পরিচয় গোপন রাখা হবে। কথাগুলো বলেছেন, ঝিনাইগাতী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ফায়েজুর রহমান।

তিনি উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় জুয়া, বাল্যবিবাহ ও মাদক কারবারিদের তথ্য প্রদানের জন্য সাধারণ মানুষের প্রতি আহবান জানিয়েছেন। তিনি বলেন, জুয়া ও মাদকের ভয়াল থাবা থেকে যুব সমাজকে রক্ষা করতে হলে সকলের সস্মিলিত সহযোগিতার প্রয়োজন। মাদক কারবারি কারা এবং কোথায়, কখন কিভাবে মাদক বিক্রয় করছেন সেই তথ্য গুলো আমাদের জানান, আমরা ঐ সমস্ত মাদক কারবারিদের আইনের আওতায় নিয়ে আসব। পাশাপাশি থানা পুলিশের পক্ষ থেকে তথ্যদাতার নাম পরিচয় গোপন রাখা হবে।

তিনি বলেন, বাল্যবিবাহ সামাজিক একটি ব্যাধী। বাল্য বিবাহের আয়োজন করার পরে নয়, সম্ভব হলে আগে তথ্য দিয়ে সহায়তা করুন। বিবাহের আয়োজন করে ফেললে আর্থিক ও সামাজিক ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয় মেয়েটির পরিবার। আমাদের উদ্দেশ্য কাউকে ক্ষতিগ্রস্ত করা নয়। আইন এবং সমস্যার বিষয়ে জনসাধারণকে সচেতন করা। আমরা চাই এর ভয়াবহতা সম্পর্কে সামাজিক ভাবে ওই পরিবারসহ আশপাশের লোকজন জানুক এবং সচেতন হউক।

তিনি আরো বলেন, জনগণের ধারনা, “যার টাকা আছে, আইন তার পাশে থাকবে। যে অন্যায় করবে, সে শাস্তি পাবে না এবং নিরপরাধী লোক হয়রানির শিকার হবে” আমি এই ধারনাটি ভুল প্রমান করতে চাই। কেননা আইন সবার জন্যই সমান। বিষয়টি মাথায় রেখে আমার অধীনস্থদের কাজ করার জন্যে কড়া নির্দেশ দিয়েছি।”

উল্লেখ্য যে, ওসি মোহাম্মদ ফায়েজুর রহমান ঝিনাইগাতী থানায় যোগদান করে ইতোমধ্যেই মাদক এবং জুয়ার বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছেন। জেলা পুলিশ সুপার নাহিদ হাসান চৌধরীর নির্দেশে এবং নালিতাবাড়ী সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার আফরোজা নাজনিনের পরামর্শে মাদকসহ অন্যান্য অপরাধী সম্পর্কে তথ্য জানতে প্রতিনিয়ত উপজেলার ৭ টি
ইউনিয়নের প্রতিটি ওয়ার্ডে বিট পুলিশিং কার্যক্রম চালু করা হয়েছে। পাশাপাশি পথসভা করে জনগনকে সচেতন করা হচ্ছে। পুলিশের কাজে জনগণের সম্পৃক্ততা যত বাড়বে, মানুষ যত সচেতন হবে অপরাধমুক্ত সমাজ গড়াটা ঠিক ততটা সহজ হবে বলে ওসি ফায়েজুর রহমান মনে করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *