মোঃ আরিফুল ইসলাম ঝিনাইগাতী( শেরপুর) প্রতিনিধি :

শেরপুরের সীমান্তবর্তী ঝিনাইগাতী উপজেলার নওকুচির গভীর জঙ্গল থেকে অটো চালক হোসেন আলী (৩৫) এর অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার সহ হত্যার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে ২যুবককে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-১৪। মঙ্গলবার ভোরে র‌্যাব-১৪ এর একটি আভিযানিক দল এ মৃত দেহ উদ্ধার করে। নিহত অটো চালক জেলার শ্রীবরদী উপজেলার পৌর শহরের আশরাফ আলীর ছেলে। গ্রেপ্তারকৃতরা হচ্ছেন, শ্রীবরদী উপজেলার ভেলুয়া গ্রামের আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে সুজন মিয়া (২৮) ও ঝিনাইগাতী উপজেলার নওকুচি গ্রামের মফিজ উদ্দিনের ছেলে সুমেল রানা(৩০)।
নিহতের পরিবার সুত্রে জানা যায়, ১ছেলে ১মেয়ের জনক হোসেন আলী তার বড় ভাই ইয়াকুব আলীর ক্রয়কৃত মিশুক অটো রিক্সাটি ভাড়ায় চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করছিল। গত ২৬নভেম্বর সকাল আনুমানিক ৯ঘটিকার দিকে শ্রীবরদী পৌর শহর থেকে যাত্রী নিয়ে বের হয়ে আর বাড়ী ফিরেনি। বহু খোজাখুজি করেও হোসেন আলীকে না পেয়ে ২৯নভেম্বর তারই অপর বড় ভাই আবুল কাশেম বাদী হয়ে শ্রীবরদী থানায় একটি সাধারণ ডাইরি করে। ঘটনার কোন কুল-কিনারা না পেয়ে নিহতের স্বজনরা র‌্যাব-১৪ এর ধারস্থ হয়। হোসেন আলীর ব্যবহৃত মোবাইল নম্বরের সুত্র ধরে সুমেল রানা ও সুজনকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব। আসামীদের দেয়া স্বীকারোক্তিতে মঙ্গলবার সকালে উক্ত জায়গা থেকে হোসেন আলীর অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার করা হয়।

গ্রেপ্তারকৃতরা জানায়, যাত্রীবেসে প্রথমে অটো রিক্সাটি পাহাড়ে নিয়ে যায়। পরে হোসেন আলীকে হত্যা করে মাটিতে পুঁতে রেখে ব্যাটারীগুলো ১০হাজার টাকায় বিক্রি করে দু’জনে ভাগ করে নেয়। থানা পুলিশ পরিত্যক্ত অটো রিক্সাটিও উদ্ধার করেছে।

এসময় র‌্যাব-১৪ এর অধিনায়ক(সিও)ইউং কমান্ডার রুকুনুজ্জামান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার(নালিতাবাড়ী সার্কেল) আফরোজা নাজনীন, সহকারী কমিশনার জয়নাল আবেদীন ও ঝিনাইগাতী থানার ওসি মোহাম্মদ ফায়েজুর রহমান সহ আইন শৃংক্ষলা বাহিনীর বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা, সাংবাদিক ও শতশত জনগণ উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply