মোঃমেহেদী হাসান,ঝিনাইদহ সংবাদদাতাঃ
ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুর উপজেলার কুশনা ইউনিয়নের হরিন্দীয়া গ্রামে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে প্রতিপক্ষের হামলায় ইকবাল হোসেন (৪৬)নামে এক নৈশ প্রহরী কে কুপিয়ে জখম করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। আহত ব্যক্তি হরিণদিয়া গ্রামের মৃত হায়াত আলী মন্ডলের ছেলে।গত শনিবার (৫ই জুন) আনুমানিক রাত সাড়ে দশটার দিকে উপজেলার হরিনদিয়া গ্রামে এঘটনা ঘটে।আহত ইকবাল হোসেন এর ছেলে ইমদাদুল হক জীম এর সাথে কথা বললে,তিনি জানান একই গ্রামের আঃলীগ নেতা রফিকুল ইসলাম মুংলার পুকুর দেখাশোনার উদ্দেশ্যে আমার পিতা তার কর্মস্থলে যাওয়ার সময় একই গ্রামের প্রতিবেশী মতিয়ার (৪৫),মামুন হোসেন (১৭), আশাদুল ইসলাম,শাওন হোসেন(২১) নামে,তাদের বসতবাড়ির সামনে পৌঁছালে তারা দলবদ্ধ হয়ে অন্যায়ভাবে আমার পিতাকে আটকিয়ে অশালিন ও অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে।এমনবস্থায় গালিগালাজ করার কারন শুনতে চাইলে আসামী মতিয়ার রহমানের হাতে থাকা ধারালো দা দিয়ে হত্যার উদ্দেশ্যে আমার পিতা ইকবাল হোসেন এর মাথায় ও ঘাড়ে কোপ মারলে তিনি তাৎক্ষনিক রক্তাক্ত অবস্থায় মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। এসময় আসামী মতিয়ার চিৎকার করে আসামী মামুনকে বাড়ি থেকে বন্দুক এনে গুলি করার হুকুম দেন।এক পর্যায়ে আসামী সবাই মিলে আহত ইকবাল কে টেনে হেঁচড়ে বাড়ির ভিতরে নেওয়ার চেষ্টা করে।এসময় আহত ইকবালের কাছে থাকা নগদ নয় হাজার টাকা ও সাড়ে দশ হাজার টাকার মূল্যের একটি স্মাট ফোন ছিনিয়ে নেই। এরই ভিতরে আহত ইকবালের আত্মচিৎকারে
প্রতিবেশি মিন্টু,ইসরাফিল,মন্টু ও মুসা এগিয়ে আসলে আসামীরা তাদের কেও প্রান নাশের হুমকি দিয়ে চলে যেতে বলে, এমনবস্থায় এগিয়ে আশা প্রতিবেশিরা চলে না যেয়ে আহত ইকবাল কে উদ্ধার করে তাৎক্ষনিক উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে এসে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করে।এসময় কর্তব্যরত চিকিৎসক আহত ইকবালের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় তাকে যশোর সদর হাসপাতালে রেফার্ট করে।বর্তমানে ভিকটিম ইকবাল যশোর সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। আহত ইকবালের ছেলে আরও জানান,বর্তমানে আসামিরা নানা ভাবে আমাদের পরিবারের সকল সদস্যদের কে প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে যাচ্ছে।তারা যেকোন সময় পরিবারের সদস্যদের ওপর হামলা করে ক্ষতি করতে পারে।তিনি আরও বলেন, আসামী মতিয়ার নিষিদ্ধঘোষিত হক পার্টির একজন সাবেক সদস্য ও বিএনপির সক্রিয় সদস্য।এ ঘটনায় আহত ইকবালের ছেলে ইমদাদুল হক জীম বাদী হয়ে কোটচাঁদপুর মডেল থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।এ ব্যপারে মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মঈন উদ্দিন বলেন,এ ধরনের একটি অভিযোগ পেয়েছি।তদন্ত সাপেক্ষে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *