আমির হোসেন, গাজীপুরঃ টঙ্গীর আমতলী কেরানীর টেক এলাকায় ক্লাব দখল ও আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটেছে। এই ঘটনায় অন্তত ১০ জন আহত হয়েছে। আহতদের উদ্ধার করে স্থানীয় লোকজন শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। আহতরা হলেন-কবির আহমেদ মজুমদার সাদ্দাম (২৫), বিপ্লব মজুমদার (৩২), আবু সাইদ (২৪), রাসেল (২০), আকাশ (২০), সিয়াম (২১), রানা ও মনির।

এদের মধ্যে গুরুতর আহত কবির আহমেদ মজুমদার সাদ্দামকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এবং বিপ্লব মজুমদারকে ঢাকা বক্ষব্যধি হাসপাতালে এবং আবু সাইদকে ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে প্রেরন করা হয়েছে। এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার হত্যা মামলার প্রধান স্বাক্ষী শহীদ সুমন আহমেদ মজুমদারের স্মরণে শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টারের সুযোগ্য সন্তান যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী আলহাজ্ব মো: জাহিদ আহসান রাসেলের ছোট ভাই মরহুম জাবিদ আহসান সোহেল গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের ৪৬নং ওয়ার্ড আমতলী কেরানীর টেক এলাকায় শহীদ সুমন আহমেদ মজুমদার স্মৃতি সংসদ নামের একটি ক্লাবটি উদ্বোধন করেন। দীর্ঘদিনযাবত এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ীরা ক্লাবটি দখলের জন্য পায়তারা করছে। আধিপত্যের বিরোধকে কেন্দ্র করে মঙ্গলবার রাতে শহীদ সুমন আহমেদ মজুমদারের বাবা মনির আহমেদ মজুমদার ও তার ছেলে সাদ্দামের সাথে স্থানীয় এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ী আক্তার হোসেন, নুর মোহম্মদ, রোকেয়া বেগম, উজ্জল, আফজাল হোসেন, আব্দুর রহিম, মুন্না, সাগর, সোহেল মিয়া, অপূর্ব বাসফুর গ্রুপের সাথে বাকবিতর্কতায় জড়ায়।

এব্যাপারে গাজীপুর মহানগর আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মতিউর রহমান মতি বিষয়টি মিমাংশার জন্য উভয় পক্ষকে বাসায় যাওয়ার জন্য নির্দেশ দিয়েছিলেন। তার নির্দেশ অনুযায়ী গতকাল মঙ্গলবার রাতে মনির আহমেদ মজুমদার তার লোকজন নিয়ে মতিউর রহমান মতির বাসায় যাওয়ার পথে পূর্ব থেকে উৎপেতে থাকা আক্তার হোসেন, নূর মোহাম্মদ ও কামালের নেতৃত্বে ৪০/৫০ জন সশস্ত্র সন্ত্রাসী দেশীয় অস্ত্রসহ মনির আহমেদ মজুমদার ও তার লোকজনের উপর অতর্কিত হামলা চালায়। এসময় ফাঁকা গুলি ও ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়ে এলাকায় আতঙ্ক সৃষ্টি করে। এ বিষয়ে গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ পুলিশ কমিশনার (অপরাধ দক্ষিন) ইলতুৎ মিশ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে এই ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন। এ ব্যাপারে টঙ্গী পূর্ব থানার অফিসার ইনচার্জ মো: জাবেদ মাসুদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। মামলা হলে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। উল্লেখ্য, গত এক বছর পূর্বে ২৪শ’ পিচ ইয়াবাসহ উজ্জল ডিবির হাতে গ্রেফতার হয়ে দীর্ঘদিন জেল খেটে এসে পুর্নরায় এলাকায় সন্ত্রাসী কার্যকলাপ ও মাদক ব্যবসা শুরু করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *