মোহাম্মদ হাসান আলী
জেলা প্রতিনিধি:

সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট রানুআরা খাতুনের নেতৃত্বে শহরের বেশকিছু বেসরকারী হাসপাতাল ও ক্লিনিকে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয় এতে সিলগালা সহ জরিমানা করা হয় ৪ টি ক্লিনিকের মালিক কে।

জানা যায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট রানুআরা খাতুন শহরের বেশকিছু বেসরকারি হাসপাতাল ও ক্লিনিকে ভ্রাম্যমান আদালত অভিযান পরিচালনা করেন, এ সময় তার সাথে ছিলেন ডেপুটি সিভিল সার্জন ডাঃ শামীম হোসাইন, নির্বাহী অফিসের কর্মকর্তা পুলিশ প্রশাসনের লোকজন।
ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করার সময় লাইসেন্সের মেয়াদ উত্তীর্ণ, অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ ও দায়িত্বরত ডাক্তার না থাকার অভিযোগে শহরের মেরিন নার্সিং হোমকে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা সহ সিলগালা করা হয়।

জয় ক্লিনিকের অপারেশন থিয়েটার অস্বাস্থ্যকর পরিবেশের কারনে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা সহ অপারেশন থিয়েটার সিলগালা করা হয়। পাইলট হাসপাতালের মালিককে ২০ হাজার টাকা এবং ইউনাইটেড হাসপাতালের মালিককে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয় বলে ডেপুটি সিভিল সার্জন ডাঃ শামীম হোসাইন গণমাধ্যম কর্মীদের জানিয়েছেন।

সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট রানুআরা খাতুন বলেন বেসরকারী হাসপাতাল ও ক্লিনিকের সেবার মান বৃদ্ধি ও উন্নত পরিবেশ বজায় রাখার জন্যই এ ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করাহয় তিনি আরও বলেন এ ধরনের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

Leave a Reply