মিরু হাসান বাপ্পী
বগুড়া জেলা প্রতিনিধি

বগুড়া জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের ১২তম ত্রি-বার্ষিক সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে দীর্ঘ ১২ বছর পর। নির্বাচনে সব ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। একই সঙ্গে ভোট চলাকালে জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটরা দায়িত্ব পালন করবেন।

বগুড়া জিলা স্কুল মাঠে শুক্রবার (২৬ নভেম্বর) সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত বিরতিহীন ভোট গ্রহণ চলবে। মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সদস্য সুলতান মাহমুদ খান রনি এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, জেলা শিক্ষা অফিসের মাধ্যমে ৯০টি বুথে ২৭০ জন শিক্ষক ভোট গ্রহণ কাজে কর্মরত থাকবেন। নির্বাচনে ৯০টি বুথে ১৬ হাজার ৯০০ জন ভোটার তাদের ভোট প্রয়োগ করবেন। নির্বাচনে সভাপতি, কার্যকরী সভাপতি, সাধারণ সম্পাদকসহ ৩০টি পদে ১৬২ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

মাহমুদ খান আরও বলেন, নির্বাচনী এলাকাসহ আশপাশের এলাকা সিসি ক্যামেরার আওতায় থাকবে। নির্বাচন সুষ্ঠু অবাধ ও শান্তিপূর্ণ করতে কমিটির সব প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, নির্বাচনে সভাপতি পদে চারজন, কার্যকরী সভাপতি পদে চারজন, সহ-সভাপতি পদে ২২ জন, সাধারণ সম্পাদক পদে পাঁচজন, সহ-সাধারণ সম্পাদক পদে ১২ জন, কোষাধ্যক্ষ পদে তিনজন, সাংগঠনিক সম্পাদক পদে পাঁচজন, সমাজকল্যাণ সম্পাদক পদে তিনজন, সাংস্কৃতিক সম্পাদক পদে ছয়জন, ক্রীড়া সম্পাদক পদে সাতজন, দপ্তর সম্পাদক পদে চারজন, প্রচার সম্পাদক পদে ছয়জন, ধর্মীয় সম্পাদক পদে তিনজন, আন্তঃজেলা সড়ক সম্পাদক পদে ছয়জন, অভ্যন্তরীণ সড়ক সম্পাদক পদে চারজন, কার্যনির্বাহী সদস্য পদে ৬৮ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

জেলা পুলিশ সুপার সুদীপ কুমার চক্রবর্তী বলেন- মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের নির্বাচনে সর্বোচ্চ নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। ৯০টি বুথ ও জিলা স্কুলের প্রবেশ পথে ১২০ জন আনসার মোতায়েন থাকবে। ভেতরে পুলিশ কন্ট্রোল রুম স্থাপন করা হয়েছে। থাকবে নির্বাচনী এলাকার বাইরে শক্তিশালী পুলিশ সদস্যদের দল। পুলিশের গোয়েন্দা টিম ও বিশেষ শাখার পুলিশ সদস্যও থাকবে। কোনোরকম নাশকতার ঘটনা যাতে না ঘটে সে ব্যাপারে সতর্ক থাকবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।।

Leave a Reply