এম এইচ লিপু মজুমদার ধর্মপাশা প্রতিনিধি

সুনামগঞ্জের ধর্মপাশা উপজেলার সেলবরষ ইউনিয়নের খলাপাড়া গ্রামের পেছনে পশ্চিমের বন্দ নামক স্থানে রোপা আমন জমিতে ধানের চারা রোপন করতে বজ্রপাতে তিনজন কৃষি শ্রমিক আহত হয়েছেন। আজ বুধবার (সেপ্টেম্বর) সকাল পৌনে সাতটার দিকে এই ঘটনা ঘটে। বজ্রপাতে আহতরা হলেন, কৃষি শ্রমিক আবদুল মোতালিব (৫০),জাহেদ আলী (৫৫) ও শাহীন মিয়া (৪০)। তাঁদেরকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

এলাকাবাসী,প্রত্যক্ষদর্শী ও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা গেছে,আজ বুধবার সকাল ছয়টার দিকে উপজেলার সেলবরষ ইউনিয়নের খলাপাড়া গ্রামের পেছনে পশ্চিমের বন্দ নামক স্থানে একই গ্রামের বাসিন্দা তিনজন কৃষি শ্রমিক সেখানে থাকা রোপা আমন জমিতে ধানের চারা রোপন করতে যান। সকাল সাড়ে ছয়টার দিকে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি ও বেশ কয়েকবার বজ্রপাতের বিকট শব্দ হয়। এ সময় বজ্রপাতের বিকট শব্দে ও বজ্রাঘাতে খলাপাড়া গ্রামের বাসিন্দা কৃষি শ্রমিক আবদুল মোতালিব, জাহেদ আলী ও শাহীন মিয়া আহত হন। এ সময় খানিকটা দূরে খলাপাড়া গ্রামের কৃষক আহাদ মিয়া (৩৫) তাঁর নিজের জমিতে পাওয়ার ট্রিলার ( হালচাষ করার যন্ত্র) দিয়ে রোপা আমন আবাদের জন্য জমি প্রস্তুত করছিলেন। বজ্রপাতের বিকট কয়েকটি শব্দ হওয়ার পর পরই ওই তিনজন কৃষি শ্রমিক ধানের চারা রোপন বন্ধ করে দিয়ে তাঁরা ওই জমিতে শুয়ে পড়েন। কাছে গিয়ে এই দৃশ্য দেখতে পেয়ে মুঠোফোনে খবরটি তাঁদের স্বজন ও স্থানীয় লোকজনকে জানান। খবর পেয়ে স্থানীয় লোকজন ও আহতের স্বজনেরা ওই বন্দে গিয়ে আহত তিনজন কৃষি শ্রমিককে উদ্ধার করে সকাল আটটার দিকে ধর্মপাশা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগে নিয়ে যান।সেখানে তাঁদেরকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়ার পর সেখানকার চিকিৎসকেরা তাৎক্ষনিকভাবে আহতদেরকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

উপজেলার সেলবরষ ইউনিয়নের ৩নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আতিকুল ইসলাম বলেন, বজ্রপাতে আহত কৃষি শ্রমিক আবদুল মোতালিব কানে শুনতে পাচ্ছিলেন না ।জাহেদ আলীর দুই পা অবশ হয়ে যায় এবং শাহীন মিয়ার দুই পায়ের বিভিন্ন স্থানের বেশ কিছু অংশ ঝলসে যায়। কৃষক আহাদ মিয়ার কাছ থেকে খবর পেয়ে আমরা ওই বন্দ থেকে আহতদেরকে উদ্ধার করি। পরে তাঁদেরকে হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করা হয়েছে। তাঁরা এখন বিপদ মুক্ত রয়েছেন।

Leave a Reply