এম এইচ লিপু মজুমদার ধর্মপাশা প্রতিনিধি:

সুনামগঞ্জের ধর্মপাশা উপজেলার সদর বাজার জামে মসজিদ কমিটির সভাপতি ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মো.আবদুল কাইয়ুম চৌধুরী ওরফে শফিক চৌধুরীর বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা করায় ও অবৈধভাবে তালেব আলী নামের এক ব্যক্তি মসজিদের জায়গা দখল করার প্রতিবাদে এক মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ বুধবার বেলা দুইটার দিকে মসজিদ সংলগ্ন সড়কে ধর্মপাশা সদর বাজার জামে মসজিদ কমিটি ও সর্বস্তরের মুসুল্লী সমাজ এই মানবন্ধনের আয়োজন করে। উপজেলার আশরাফুল উলুম হাফিজিয়া মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটির সভাপতি ফখরুল ইসলাম চৌধুরী এতে সভাপতিত্ব করেন।

সুনামগঞ্জ জেলা পরিষদের সদস্য জুবায়ের পাশা হিমুর
সঞ্চালনায় মানববন্ধনে বক্তব্য দেন
উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমাণ্ডার রুহুল আমীন তালুকদার,

ধর্মপাশা বাজার ব্যবসায়ী কমিটির সাবেক
সভাপতি মোহাম্মদ হাবিবুর রহমান,

ধর্মপাশা বাজার মসজিদের খতিব হাফেজ বজলুর রহমান,

উপজেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক আজহারুল ইসলাম দিদার,

সাংগঠনিক সম্পাদক মজিবুর রহমান,

উপজেলা বিএনপির সহসভাপতি আব্দুল হক প্রমুখ

বক্তারা বলেন, ধর্মপাশা নতুনপাড়া এলাকার বাসিন্দা তালেব আলী দুস্কৃতি প্রকৃতির লোক। মসজিদ সংলগ্ন তার যে জায়গা তার রয়েছে তার চেয়েও তিনি বেশি দখলে রয়েছেন। এ নিয়ে প্রতিবাদ করায় মসজিদ কমিটির সভাপতিকে আসামি করে চলতি মাসের প্রথম সপ্তাহে সুনামগঞ্জ জজ কোর্টে তিনি একটি মিথ্যা মামলা করেছেন।এই মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও অবৈধভাবে মসজিদের দখল করা জায়গা না ছাড়লে ভবিষ্যতে কঠিন কর্মসূচি দেওয়া হবে।

তালেব আলী বলেন,
মসজিদের জায়গা আমি দখল করিনি। বরং আমার যতটুকু জায়গা রয়েছে তা বুঝিয়ে দেওয়ার জন্য মসজিদ কমিটি, এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিদের কাছে বার বার গিয়েও কোনো সুবিচার পাইনি। মসজিদ কমিটির সভাপতি আবদুল কাইয়ুম চৌধুরী তার লোকজন নিয়ে আমাকে আমার মালিকানা জায়গায় ঘর তুলতে বাধা দেওয়াসহ নানাভাবে হেনস্তা করায় আমি তার বিরুদ্ধে আদালতে মামলা করেছি।

উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) মো.আবু তালেব বলেন, বাজার জামে মসজিদ সংলগ্ন চার শতক জায়গা রয়েছে।এর মধ্যে ক্রয়সূত্রে তিন শতক জায়গার মালিক তালিব আলী। কিন্ত ম্যাপে এক শতক জায়গা সেখানে বেশি আছে। এই বেশি জায়গাটা টুকুর মালিকানা নেই। কিন্তু তিনি সেখানে চারশতক জায়গায় একটি দোকান নির্মাণ কাজ করাচ্ছিলেন।প্রশাসনের পক্ষ থেকে এই নির্মাণ কাজ বন্ধ করা হয়েছে। এ অবস্থায় তালেব আমার বিরুদ্ধেও উর্ধ্বতন কর্তপক্ষের কাছে অভিযোগ করেছিল।এ নিয়ে মসজিদের পক্ষ নিয়ে সভাপতি প্রতিবাদ করায় মসজিদ কমিটির সভাপতিকে জড়িয়ে আদালতে সে একটি মিথ্যা মামলা করে জায়গাটি অবৈধভাবে ভোগ দখলের পায়তারা করছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *