মোঃ রফিকুল ইসলাম , নওগাঁ প্রতিনিধিঃ
নওগাঁয় কঠোর লকডাউনে জেলা প্রশাসক হারুন অর রশীদ এর দিক নির্দেশনায় জেলা প্রশাসনের এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেটদের নেতৃত্বে প্রতিদিন চলছে শহরের বিভিন্ন সড়ক ও মোড়ে মোড়ে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করা হচ্ছে। তারপরও নানান অজুহাতে জনসাধারণ বাইরে বের হচ্ছেন।

আজ কঠোর লকডাউনের শেষ দিনেও নওগাঁয় জেলা প্রশাসন, সেনাবাহিনী, বিজিবি ও পুলিশ মাঠে থাকলেও রাস্তায় বেড়েছে মানুষের আনাগোনা। জরুরি পরিসেবার পাশাপাশি বেশ কিছু রিক্সা ভ্যান ও টমটম চলতে দেখা গেছে। তবে গণপরিবহন, দোকানপাট, শপিংমল ও বিপনী বিতান বন্ধ রয়েছে।

মাক্স কারো পকেটে, কারো হাতে, কারো বা ব্যাগে রাখা। থুতনিতেও লাগানো আছে অনেকের। দূর থেকে ভ্রাম্যমাণ আদালত দেখামাত্র তাঁরা ঝটপট মুখে মাস্ক পরতে শুরু করেন। এর পরও অনেকে হাতেনাতে ধরা পড়ে যান। এ জন্য গুনতে হয় তাঁদের জরিমানা।

নওগাঁ এলাকার বিভিন্ন সড়কে অভিযান শেষে এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট রফিকুল ইসলাম বলেন, ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার উদ্দেশ্য ছিল, মাস্ক পরার ক্ষেত্রে সরকারি নির্দেশনার বাস্তবায়নসহ করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে মাস্ক পরার ব্যাপারে জনসাধারণের মধ্যে সচেতনতা বাড়ানো। অযথা বাড়ির বাহিরে সড়কে মোটরসাইকেল নিয়ে ঘোড়াফেরা করছেন, তাঁদের কারো ৫০০টাকা আবার কারো ২০০ টাকা করে অর্থদণ্ড করা হয়, এ ছাড়াও বিনামূল্যে মাস্ক বিতরণ করা হয়েছে।

জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে মোবাইল কোর্টের অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানান তিনি।

Leave a Reply