শুভ চক্রবর্ত্তী, নবীনগর (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি :

নবীনগর উপজেলার লাউর ফাতেহপুর ইউনিয়নের হাজীপুর গ্রামের গবাদিপশুর ঘরে আগুন লেগে গবাদি পশুর মৃত্যু ,৬/৭ লক্ষ টাকা ক্ষয়ক্ষতি।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, রবিবার (৩০ মে) আনুমানিক রাত ১০টার দিকে হাজীপুর গ্রামের মৃত মনির মিয়ার ছেলে মহিউদ্দিন মিয়ার গবাদিপশুর ঘরে আগুন লেগে যায়। আগুন লাগার ঘটনা নবীনগর ফায়ারসার্ভিসকে জানালে তৎক্ষনাৎ ফায়ারসার্ভিসের একটি দল সেখানে পৌঁছে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়। ততক্ষণে ঐ ঘরে থাকা গবাদি পশু আগুনে পুড়ে মারা যায়।

মনির মিয়ার ছেলে মোঃ মহিউদ্দিন মিয়ার জানান, এমনেতেও করোনায় আমার পরিবার বিপর্যস্ত, তার উপর কোরবানির ঈদ উপলক্ষে আমার পালিত ৩টি গুরু ও ২ ছাগল আগুনে পুড়ে মরল গেছে, এখন আমি নিঃস্ব। সরকার বা কেউ যদি আমাকে সাহায্য না করে তাহলে আমার পক্ষে এই ক্ষতি পুষিয়ে নেওয়া সম্ভব হবে না।

গ্রামবাসীর প্রচেষ্টায় আগুন নিবাতে না পারলে নবীনগর ফায়ারসার্ভিস কে সংবাদ দিলে, ফায়ার সার্ভিস ও স্থানীয়দের প্রায় ১ ঘন্টার প্রচেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে।

তবে আগুনে পুড়ে ছায় হয়ে গেছে মোহাম্মদ মহিউদ্দিনের ঘরে থাকা ৩ টি গরু ২ টি ছাগল। তবে কিভাবে আগুনের সূত্রপাত না নিশ্চিত হউয়া যায়নি, রবিবার রাত আনুমানিক ১০ টায় আগুনের সূত্রপাত ঘটে।

বাড়ির মালিক মোহাম্মদ মহিউদ্দিন মিয়া জানান করোনার কারনে এমনিতেই জনজিবন বিপর্যস্ত আসছে ঈদ কে সামনে রেখে এই গরু গুলো লালন পালন করছিলাম।

আমার সবগুলো গরু এখন আগুনে পুড়ে ছায় হয়ে গেছে সরকার যদি এখন আমাকে সাহায্য না করে আমি এবং আমার পরিবার এই ক্ষতি পুষিয়ে উঠা অনেক কষ্টকর হয়ে দারাবে।

স্থানীয়রা বলেন মহিউদ্দিনের পরিবারের বড় ধরনের ক্ষতি হয়ে গেল, এক যদি সরকারি ভাবে তাকে কিছু সাহায্য সহযোগীতা করা হয়, তাহলে তার ক্ষতি কিছুটা পুষিয়ে উঠা সম্ভব।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *