নিজেস্ব প্রতিনিধিঃ
‘তারুণ্যের শক্তি বাংলাদেশের সমৃদ্ধি’ বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় উদ্যোক্তা সৃষ্টি ও দক্ষতা উন্নয়ন প্রকল্প (ইএসডিপি) প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত উদ্যোক্তাদের মাঝে সনদপত্র বিতরণ। আজ সোমবার (৭ জুন)সকাল ১১টাই শহরের বড়হরিশপুর এলাকায় অবস্থিত উদ্যোক্তা উন্নয়ন ও বিনিয়োগ সহায়তা কেন্দ্রে সনদপত্র বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়। উদ্যোক্তা উন্নয়ন ও বিনিয়োগ সহায়তা কেন্দ্র, নাটোরের প্রশিক্ষণ সন্ময়ক ইমরান হোসেনের সভাপতিত্বে ও সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, জনাব মোঃ আব্দুর রাজ্জাক ডিজিএম জনতা ব্যাংক নাটোর শাখা। এসময় উদ্যোক্তা উন্নয়ন ও বিনিয়োগ সহায়তা কেন্দ্র নাটোর থেকে প্রশিক্ষন প্রাপ্ত সফল উদ্যোক্তাগণ উপস্থিত ছিলেন। উদ্যোক্তা সৃষ্টি ও দক্ষতা উন্নয়ন প্রকল্প (ইএসডিপি) আওতায় নাটোর জেলা থেকে মোট প্রশিক্ষণ নিয়েছেন ৩৮৯ জন প্রশিক্ষণার্থী। তাদের মধ্যে ১১২ জন মেয়ে এবং ২৭৭ জন ছেলে প্রশিক্ষণার্থী প্রশিক্ষণ নিয়েছেন। এসময় উদ্যোক্তা উন্নয়ন ও বিনিয়োগ সহায়তা কেন্দ্র নাটোর থেকে প্রশিক্ষন প্রাপ্ত সফল নারী উদ্যোক্তা ছাদ বাগান এর কর্ণধর উর্মি সরকার বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্যোগে নারীদের আত্ন কর্মসংস্থানের জন্য এমন প্রশিক্ষণ আমার জীবন বদল দিয়েছে। আমি এখানে প্রশিক্ষণ নিয়ে যেমন নিজেরসহ বেকার নারীদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করতে পেরেছি। উদ্যোক্তা উন্নয়ন ও বিনিয়োগ সহায়তা কেন্দ্র নাটোর থেকে প্রশিক্ষণ নিয়ে আরও একজন উদ্যোক্তা মোস্তাফিজুর রহমান টুটুল জানান, বর্তমান সময়ে সবচেয়ে আলোচিত কভিড-১৯ প্রতিরোধে রোগ প্রতিরোধ সক্ষমতা অর্জনে বিশুদ্ধ খাদ্য গ্রহন জরুরি হয়ে দাড়িয়েছে। “অর্গানিক পল্লী” নামের একটি ই-কমার্স সাইডের মাধ্যমে পল্লী এলাকার বিষমুক্ত ফল ও সব্জি নিজে উৎপাদন করে বা নিরাপদ উৎপাদকের নিকট থেকে নিয়ে ভোক্তাদের দোড়গোড়ায় পৌছে দিচ্ছেন। অর্গানিক পল্লীতে সম্পূর্ণ প্রাকৃতিক উপায়ে যান্ত্রিক ও সনাতন ব্যবস্থায় ঢেঁকি স্থাপন করে, ঢেঁকি ছাঁটা চাল উৎপাদন করে ভোক্তাদের পুষ্টি চাহিদার যোগান দিচ্ছে। কল্যাণমুখি বর্তমান সরকারের এমন উদ্যোগ বেকার যুবক-যুবতিদের চাকুরির পেছনে না ছুটে আত্ন কর্মসংস্থানের অনুপ্রেরণা যোগাবে। উদ্যোক্তা সৃষ্টি ও দক্ষতা উন্নয়ন প্রকল্প (ইএসডিপি) আওতায় নাটোর জেলা থেকে মোট প্রশিক্ষণ নিয়েছেন ৩৮৯ জন প্রশিক্ষণার্থী। এদের মধ্যে সফল উদ্যোক্তা ৪৮ জন। মোঃ জুবায়ের হোসেন (sobzon. com ই-কমার্স), আসিফ খান (Ayurva), মোঃ আফজাল হোসেন (পাট ব্যবসার), মোঃ আল-আমিন পাটোয়ারী, মোঃ আহসান হাবীব, মোঃ গোলাম মোস্তাফা(প্রিন্টিং), মোঃ রফিকুল ইসলাম(কন্সস্ট্রাকশন), বিমান কুমার সাহা(জুয়েলার্স), খন্দকার মোঃ মখলেছুর রহমান(মোবাইল ব্যবসা), মোঃ আবদুল্লাহ আল মারুফ(ই-কমার্স), কামরুল হাসান(ই-কমার্স), মোঃ সেলিম রেজা(কৃষি ব্যবসা), মোঃ মতিউর রহমান(কম্পিউটার ট্রেনিং), মোঃ আশরাফুল ইসলাম(মাছের খামার), মোঃ ওবায়দুর রহমান, মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান, মোঃ শহিদুল্লাহ (সুমন)( ট্রেনিং সেন্টার), মোঃ মোশারফ হোসেন,( ইলেকট্রনিক), মোঃ জাবেদ মাসুদ, মোঃ সেলিম হোসেন(নিরাপদ কৃষি খামার),মেহনাজ পারভীন (মালা), মোঃ সিরাজুল ইসলাম(ট্রেডিং ব্যবসার), খন্দকার আনোয়ার উদ্দিন(পরিবহন ব্যবসার), মোঃ আসাদুল্লাহ আল-মারুফ(চট ব্যবসা), মোঃ তায়েজ ইসলাম শুভ(প্রিন্টিং), মোঃ আজম আজী(ঔষধ ব্যবসা), মোঃ নাজমুল হক সরকার(মডার্ণ ডেন্টাল কেয়ার), মোঃ জালাল উদ্দিন প্রামানিক(মৎস্য চাষ), মোঃ শাহাদৎ হোসেন(মৎস্য চাষ), মোঃ আব্দুস সালাম(মৎস্য চাষ), মোঃ আশাদুজ্জামান(অরিন ট্রেডার্স মৎস্য ও পোল্ট্রী খামার), নার্গিস পারভীন(হোমিও পাথিক চিকিৎসার), মোঃ আব্দুল মতিন প্রামানিক(খামার), মোছাঃ চাঁদনী আক্তার লিজা(খামার), মোঃ নাইম হোসেন(খামার), মোঃ হাবিবুর রহমান(খামার), মোছাঃ আদিনা বেগম(বিউটি পার্লার), মোঃ আরিফুল আলম মিলন(মুদ্রণ এবং বাঁধাই কারখানা), এ.এ.এম. সাইফুল ইসলাম(ই-কমার্স), মোঃ নাফিউল নাহিন(সুপার শপ), মোঃ আল-আমিন হক তুষার(হক টেলিকম এন্ড কম্পিউটার), মোঃ নাজমুল হক(নাজমুল কম্পিউটার এন্ড ট্রেনিং সেন্টার), মেহেদী হাসান(মৎস্য চাষ), মোঃ নাবিউল ইসলাম, মোছাঃ মিতু খাতুন(কৃষি খামার), মোঃ জাকির হোসেন, মোঃ আবু রায়হান(ফিসারিজ), মোঃ নাহিদুর রহমান, মোল্লা নাসিম উস সাবাহ আবিদ(আজাদ এগ্রো ফার্ম), মোঃ আবু হাসান(হাসান ফিস এন্ড ডেইরি ফার্ম), মোঃ রোকনুল হাসান(আশার আলো ডেইরি এ্যান্ড ফিসারীজ ফার্ম), : মোছঃ মিরা খাতুন(মিরা বুটিকস্ হাউস), মোঃ পলাশ উদ্দিন(ভ্যারাইটি স্টোর), মোঃ মিরাজুল ইসলাম তালূকদার (টুটুল)( মৎস্য খামার), মোঃ রাকিবুল ইসলাম(ডেইরি ফার্ম ও মৎস্য খামার), সজিব আলী(মুদিখানা দোকান), মোঃ শামীম হোসেন(মৎস্য খামার), মোঃ মফিদুল ইসলাম(টি, এম, ইলেকট্রনিক্স), মোঃ শহিদুল ইসলাম(একতা এগ্রো ফার্ম), মোঃ আনাস আহম্মেদ(অণু ই-শপ), মোঃ এহেসান কবীর তুহিন(মাষ্টার সুজ), নাটোরসহ দেশের উত্তরাঞ্চল আগামীতে উদ্যোক্তাদের নগরী হতে যাচ্ছে। উদ্যোক্তা তৈরিতে উদ্যোক্তা সৃষ্টি ও দক্ষতা উন্নয়ন প্রকল্পের বিরাট বড় ভূমিকা রয়েছে। বর্তমান সফল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কভিডের এই সময়ে দেশের বেকার যুব-যুবতিদের আত্ন কর্মসংস্থানের জন্য এমন প্রশিক্ষণ দেশকে মধ্যম আয়ের দেশে পরিনত করতে এগিয়ে নেবে। এ কারণেই সরকার উদ্যোক্তা তৈরিতে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় ও প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক তারুণ্যের উন্নয়নে বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *