এস ইসলাম, নাটোর জেলা প্রতিনিধিঃ
গত ২৪ ঘন্টায় নাটোরের তিন উপজেলায় তিনজন খুন হয়েছেন। এরমধ্যে গুরুদাসপুর উপজেলার পুরুলিয়া গ্রামে পারিবারিক বিরোধে ছোট ভাইয়ের হাসুয়ার কোপে বড় ভাই আব্দুল খালেক (৫৫), বড়াইগ্রাম উপজেলার চকপাড়া গ্রামে পাওনা টাকা নিয়ে বিরোধে ছোট বোনের লাঠির আঘাতে ভাই মনিরুল ইসলাম (৪৫) এবং নলডাঙ্গায় নাতির মারপিটে কেছাতুল্লা (৭৫) নামে এক বৃদ্ধের মৃত্যু হয়। এসব খুনের ঘটনায় ২ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সুত্রে জানাযায়, মঙ্গলবার ০৬ মার্চ দিবাগত রাতে গুরুদাসপুর উপজেলার পুরুলিয়া গ্রামে একটি টয়লেট স্থাপনাকে কেন্দ্র করে মৃত রওশন আলীর দুই ছেলে খালেক (৫৫) এবং আব্দুল মালেকের সাথে মালেকের মধ্যে বিরোধ বাধে। একপযার্য়ে ছোট ভাই আব্দুল মালেক হাসুয়া দিয়ে বড় ভাই আব্দুল খালেককে আঘাত করে। স্থানীয়রা গুরুতর জখম অবস্থায় আব্দুল খালেককে উদ্ধার করে প্রথমে নাটোর সদর হাসপাতাল এবং পরে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বুধবার ৭ মার্চ ভোর ৪ টার দিকে সে মারা যায়।

গুরুদাসপুর থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুর রাজ্জাক জানান, ঘটনার সাথে জড়িতদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

এদিকে মঙ্গলবার সন্ধায় উপজেলার বড়াইগ্রাম ইউনিয়নের চকপাড়া গ্রামে পাওনা টাকা নিয়ে বিরোধের জেরে ঝগড়াঝাটির এক পযার্য়ে সৎবোন উম্মেহানির লাঠির আঘাতে ভাই মনিরুল ইসলাম ঘটনাস্থলেই মারা যায়।

বড়াইগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আনোয়ারুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, মনিরুল পাঁচ হাজার টাকা ধার নিয়ে ছিলেন বড়ভাই মানিকের নিকট থেকে। দীর্ঘদিন ধার পরিশোধ না করায় দ্বন্দ্বের জেরে মনিরুলের একটি ছাগল নিয়ে বেধে রাখে মানিকের বউ শরিফা বেগম। এনিয়ে বিতর্কের একপর্যায়ে উপস্থিত সৎবোন উম্মেহানি লাঠি দিয়ে মনিরুলের মাথায় আঘাত করলে তিনি ঘটনাস্থলেই মৃত্যু বরণ করেন। প্রাথমিক ভাবে উম্মেহানি ও মানিককে আটক করা হয়েছে। অভিযোগ প্রাপ্তি ও ঘটনা তদন্ত শেষে পরবর্তী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

অপরদিকে নলডাঙ্গা উপজেলার ভাটপাড়া গ্রামে ভিক্ষাবৃত্তির টাকা নিয়ে মঙ্গলবার দুপুরে কেছাতুল্লাহ সদার্রের সাথে তার ছেলে জামরুল ও নাতি ইমরানের কথাকাটাকাটি হয়। একপযার্য়ে কেছাতুল্লাহকে মারপিট করা হয়। এসময় সে অসুস্থ হয়ে পড়ে। মঙ্গলবার রাত ৮টার দিকে কেছাতুল্লা মারা যায় বলে এলাকাবাসী জানায়।

নলডাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ নজরুল ইসলাম জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করাসহ লাশ উদ্ধার করে নাটোর সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *