অনলাইন ডেক্সঃ
২০২১-২২ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটকে গতানুগতিক উল্লেখ করে এই বাজেট প্রত্যাখ্যান করেছেন নাগরিক ঐক্যের আহবায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না। বৃহস্পতিবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি একথা জানান।
মান্না বলেন, ঋণ নির্ভর ৬ লাখ ৩ হাজার ৬৮১ কোটি টাকার বাজেট দিয়েছে সরকার। করোনা মহামারীর এই মহা সংকট মোকাবিলা করতে যে ধরনের বাজেট প্রত্যাশা করেছিলাম, তার কোন ছায়া খুঁজে পাইনি এই গতানুগতিক ধারার বাজেটে। বরাবরের মতই উন্নয়ন বাজেটে অতিরিক্ত বরাদ্দ রেখে সামাজিক সুরক্ষার ব্যাপারে সরকারের অনীহা প্রকাশ পেয়েছে। করোনা মোকাবিলায় কোন ধরনের কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণের নির্দেশনা নেই। উপরন্তু বেসরকারি চিকিৎসা খাতকে কর মওকুফ সহ বিভিন্নভাবে প্রণোদনা দেয়া হয়েছে। এতে নিম্নবিত্ত, নিম্ন মধ্যবিত্ত এমনকি মধ্যবিত্তদের চিকিৎসা সুবিধা পাওয়ার সুযোগ আরো সীমিত করা হল।

তিনি বলেন, এই মহামারির মধ্যে একটি গণমুখী স্বাস্থ্য ব্যবস্থা গড়ে তোলা প্রয়োজন।

সরকার জনগণের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করার বিষয়টি সচেতনভাবেই এড়িয়ে গেছে। অভ্যন্তরীণ উৎস বিশেষ করে দেশীয় ব্যাংক থেকে ঋণ গ্রহণের যে লক্ষ্যমাত্রা নিয়েছে সরকার তাতে দেশের ব্যাংকিং খাতে তারল্য সংকট দেখা দেবে। বেসরকারি খাতে বিনিয়োগ কমে যাবে। নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টি তো হবেই না বরং অনেক মানুষ কর্মহীন হবে। করোনায় ক্ষতিগ্রস্থ নিম্ন আয়ের মানুষদের বাঁচানোর কোন উদ্যোগ নেই বাজেটে। করোনায় নতুন করে দারিদ্র সীমার নিচে নেমে যাওয়া মানুষদের বাঁচানোর ব্যাপারে কোন দিক নির্দেশনা নেই।

মান্না আরও বলেন, গত ১৩ বছর ধরে সরকার দূর্নীতির যে মহোৎসব চালাচ্ছে, তা অব্যাহত রাখার সকল আয়োজন আছে এই বাজেটে। আমরা আগেই বলেছিলাম, করোনা সংকটের মধ্যে মানুষ বাঁচানোর চেয়ে বড় কোন উন্নয়ন হতে পারে না। কিন্তু সরকার সেই পথে হাঁটেনি। এই বাজেট জনগণের বাজেট নয়। আমি এবং আমার দল নাগরিক ঐক্য প্রস্তাবিত বাজেটকে প্রত্যাখ্যান করছি। দেশের মানুষের জীবিন জীবিকার সুরক্ষা নিশ্চিত করতে প্রস্তাবিত বাজেট অবশ্যই সংশোধন করতে হবে। কেননা এই বাজেট বাস্তবায়িত হলে করোনা মহামারীর এই সংকট থেকে দেশের মানুষকে, দেশের অর্থনীতিকে বাঁচানো যাবে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *