মোঃ রিয়াজুর রহমান,
পটুয়াখালী প্রতিনিধিঃ

পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলার কালিশুরী বন্দরে লাইফ কেয়ার নামে একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান সাথী আক্তার (২৪) নামের এক প্রসূতির মৃত্যু হয়েছে। ডাক্তারের অবহেলায় প্রসূতির মৃত্যু হয়েছে বলে পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়।

বৃহস্পতিবার (২৬ আগষ্ট ) এঘটনায় মৃত সাথীর ভাই মোঃ শুভ হাওলাদার (২২) বাদী হয়ে সংশ্লিষ্ট দুই চিকিৎসকসহ ১৩ জনের নাম উল্লেখ করে বাউফল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। সাথী কাছিপাড়া ইউনিয়নের দরিয়াবাদ গ্রামের বাসিন্দা মোঃ মিলন হাওলাদারের স্ত্রী। তার বাবার বাড়ি একই ইউনিয়নের মান্দারবন গ্রামের মোঃ সোহরাব হাওলাদারের মেয়ে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র থেকে যানা যায়, বুধবার (২৫ আগষ্ট ) বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে সাথীকে কালিশুরী বন্দরের লাইফ কেয়ার ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়। ওই দিন সন্ধ্যা ৭টায় তার অস্ত্রোপচার করার কথা ছিল। কিন্তু ওই সময়ের আধা ঘন্টা আগে তড়িঘড়ি করে তার অস্ত্রোপচার করা হয়। তড়িঘড়ি করে সনদবিহীন নামমাত্র চিকিৎসক দ্বারা অস্ত্রোপচারের কারণেই সাথির মৃত্যু হয়েছে বলে জানা যায়।

সাথির ভগ্নিপতি (বোনের স্বামী) মোঃ রিয়াজ গাজী অভিযোগ করে বলেন, দায়িত্বে অবহেলা ও নামধারী চিকিৎসক দ্বারা অস্ত্রোপচার করার কারণেই সাথী মারা গেছে। মারা যাওয়ার পরেও দায় এড়াতে গুরুতর অসুস্থতার নাটক করে মৃত সাথীকে বরিশালে নেওয়ার জন্য জোরপূর্বক একটি অ্যাম্বুলেন্সে উঠিয়ে দেন ক্লিনিক কর্তৃপক্ষের লোক৷৷

এঘটনায় চিকিৎসক আহম্মেদ কামাল তুষার ও নাবিলা রহমানসহ ৮ ব্যক্তির নাম উল্লেখ করে ৪-৫ জন অজ্ঞাত ব্যক্তির নামে বৃহস্পতিবার সকালে বাউফল থানায় একটি মামলা রুজু করা হয়েছে।

এবিষয়ে বাউফল থানার ওসি আল-মামুন সাংবাদিকদের বলেন, মামলা হয়েছে। লাশ ময়না তদন্তের জন্য পটুয়াখালী জেনারেল হামপাতালের মর্গে পাঠানো হয় এবং চিকিৎসকের সনদ ও ক্লিনিকের কাগজপত্র সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে যাছাই করা হবে। সুষ্ঠু তদন্ত করে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Leave a Reply