মোঃ রিয়াজুর রহমান পটুয়াখালী প্রতিনিধিঃ

পটুয়াখালী জেলার রাংগাবালী উপজেলার মৌডুবী ইউনিয়নের নিচকাটা গ্রামে ভুমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে গত সোমবার মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী কে কুপিয়ে জখম করেছে দুর্বৃত্তরা।
স্থানীয় সুএে জানা যায় দীর্ঘ ৬বছর ধরে ইউনিয়নের নিচকাটা মৌজায় ৬ একর ভুমি নিয়ে গ্রামের মিলন খলিফা(৫০)এবং নজরুল খলিফা(৬০)এর মধ্যে বিরোধ চলমান।উক্ত সম্পত্তির তিন জন মহিলা ওয়ারিশ থানায় অভিযোগ করলে থানা কতৃক স্হানীয় পর্যায় মিমংসার সিদ্ধান্ত দিলে শালিস গণ গত শনিবার আদালতে মামলা থাকায় উভয় পক্ষকে বিবাদ না করার সিদ্ধান্ত দিলে উভয় পক্ষই তা মেনে নেয়। কিন্তু মিলন খলিফা গং গত রোববার বিরোধীয় ভুমিতে মাছের ঘের করার জন্য জোর পু্র্বক মাটি কাটা শুরু করলে গত সোমবার নজরুল খলিফা গং বাধা দিলে উভয় পক্ষের সাথে পুলিশের উপস্থিতিতে ২ দফা সংঘর্ষ বাধে এবং উভয় পক্ষের ১০ জন আহত হয়।পরবর্তীতে মিলন খলিফা গং দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে অতর্কীত ভাবে বাড়ি ঘর ভাংচুর এবং হামলা চালিয়ে মুক্তিযোদ্দ্বা মৃত ইদ্রিস হাওলাদারের স্ত্রী জাহানারা বেগম (৫৫)কে কুপিয়ে জখম করে। বর্তমানে তিনি পটুয়াখালী সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। ঘটনার ব্যাপারে শলিস মৌডুবী ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি নাজিম উদ্দীন জানায়,আমরা উভয় পক্ষকে বিরোধ না করার পরামর্শ দিলেও তারা শালিসদের সিদ্ধান্ত উপেক্ষা করে হামলা-সংঘর্ষের ঘটনা ঘটিয়েছে।
জানা যায় হামলা-সংঘর্ষের ঘটনায় উভয় পক্ষই রাংগাবালী থানায় মামলা করতে গেলে থানা কতৃ পক্ষ
মিলন খলিফা গং দের মামলা গ্রহণ করে যা প্রশ্ন বিদ্ধ।
মিলন খলিফার ভাই মোকসেদ খলিফা নজরুল খলিফা গং দের ১৬ জন কে বিবাদী করে রাংগাবালী থানায়
মামলা দায়ের করে। মামলা নং(৫ তাং৬-৪-২১)এবং পুলিশ নজরুল গং দের ৩ জন কে গ্রেফতার করে জেল হাজতে পাঠিয়েছে। উল্লেখ্য, মামলার বাদী মোকসেদ খলিফার বিরুদ্ধে বিবাদী পক্ষ ২০১৭ সালে মামলা করে ( জি আর,২০৬/১৭) এবং পুলিশের হাতে ২১/৮/২০১৭-সালে গ্রেফতার হয়।
রাংগাবালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা দেওয়ান জগলুল হাসান মুঠোফোনে জানায় উভয় পক্ষের মামলা গ্রহণ করতে হবে এমন কোন কথা নেই। তিনি বলেন পূর্ব-পরিকল্পিত ভাবে নজরুল খলিফা গং উক্ত হামলা-সংঘর্ষের ঘটনা ঘটিয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *