নিজস্ব প্রতিনিধিঃ
 
যুবদল ও পুলিশের মধ্যে সংঘর্ষে ৩ পুলিশসহ অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছেন।

শনিবার দুপুরে গাজীপুরের এ ঘটনায় পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে যোবায়ের ও মাসুদ নামে দুইজন যুবদল কর্মীকে আটক করেছে। 

গাজীপুর জেলা যুবদলের সভাপতি মনিরুল ইসলাম মনির বলেন, ২৬ মার্চ সাধারণ মানুষের ওপর হামলার প্রতিবাদে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে শনিবার বেলা সোয়া ১২টার দিকে যুবদল, স্বেচ্ছাসেবক ও ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল শুরু হয়। বিনা কারণে পুলিশ আমাদের নেতাকর্মীদের ওপর লাঠিচার্জ করে অন্তত ১৫ জন নেতাকর্মীকে আহত করেছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ জানায়, শনিবার দুপুরে জয়দেবপুর রেল ক্রসিং পার হয়ে লাঠিসোটাসহ যুবদলের একটি মিছিল বিএনপি অফিস প্রাঙ্গণে আসে। এ সময় তাদের লক্ষ্য করে বিএনপি অফিসের পেছন থেকে কে বা কারা ভাঙ্গা ইটের টুকরা দিয়ে পরপর কয়েকটি ঢিল ছুড়ে মারে। 

এতে যুবদলের কর্মীরা উত্তেজিত হয়ে উঠে। এ সময় পুলিশ তাদের নিবৃত্ত করার চেষ্টা করে। একপর্যায়ে পুলিশ উত্তেজিত নেতাকর্মীদের লাঠিচার্জ শুরু করলে যুবদল কর্মীরাও পাল্টা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল ছুড়তে থাকে। এতে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ ও ছোটাছুটি হয়। 

এ সময় পুলিশ রাবার বুলেট ও কাঁদানে গ্যাস ছুড়ে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। প্রায় আধাঘণ্টাব্যাপী পুলিশ-যুবদলের সংঘর্ষ ও ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ায় ৩ পুলিশ সদস্যসহ ১৫-২০ জন আহত হয়েছেন।

গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের উপকমিশনার (অপারাধ) মো. জাকির হোসেন বলেন, যুবদলের বিক্ষোভ মিছিল থেকে পুলিশের গাড়ি ভাংচুর করে পুলিশের ওপর হামলা করা হয়। পরে পুলিশ বিক্ষোভ ছত্রভঙ্গ করতে লাঠিচার্জ করে। এ সময় ৩ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। যুবদলের ২ কর্মীকে আটক করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *