এস এম আদনান উদ্দিন
স্টাফ রিপোর্টারঃ
পাবনায় প্রশাসনকে কঠোর হওয়ার পরামর্শ সামাজিক সচেতনতামূলক সংগঠন তারুণ্যের অগ্রযাত্রার।

বিশেষ সূত্রে জানা যায়, সমগ্র দেশে বৈশ্বিক মহামারী করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ বৃদ্ধির পর কঠোর লকডাউনের সিদ্ধান্ত নেয় সরকার। সরকারের সিদ্ধান্তে অটল থেকে রাজপথে প্রশাসনের অবস্থান প্রথম দিন থেকেই, প্রশাসনের পাশাপাশি সরজমিনে অবস্থান করছেন সাংবাদিক ও সেচ্ছাসেবকরা।

বৃহস্পতিবার (১লা জুলাই) সকাল থেকে পাবনায় সামাজিক সচেতনতামূলক সেচ্ছাসেবী সংগঠন তারুণ্যের অগ্রযাত্রা করোনাভাইরাস সম্পর্কিত সচেতনতায় জনসাধারণের মাঝে মাস্ক, সচেতনতামূলক পোস্টার ও লিফলেট বিতরণসহ মাইক নিয়ে সচেতনতা পথযাত্রায় বের হয়েছে।

এ সম্পর্কে তারুণ্যের অগ্রযাত্রার প্রধান সমন্বয়ক জুবায়ের খান প্রিন্স বলেন “সরকার ঘোষিত কঠোর লকডাউন মানছে না সাধারণ জনগণ, তাদের মাঝে কোন সচেতনতা নেই। দীর্ঘ সাতদিন আমাদের সাত সদস্যের একটি টিম সরজমিনে দেখতে পেয়েছি জনসাধারণের অধিকাংশ মানুষ মাস্ক পড়ছে না অযথা ঘুড়ে বেড়াচ্ছে বাজারে ও শহরে। গ্রাম-অঞ্চলে চায়ের দোকানে চলছে আড্ডা ও হাসিতামাশা তাদের মাঝে মহামারী সম্পর্কে সচেতনতা নেই।

তিনি আরো বলেন ” ফ্রন্ট লাইনের যোদ্ধা যেমন পুলিশ,ডাক্তার,সাংবাদিক ও সেচ্ছাসেবক অধিকাংশই করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ইতিমধ্যে অনেকে মারা গেছে, আমি নিজে করোনায় আক্রান্ত ছিলাম ও পাবনা প্রেস ক্লাবের অধিকাংশ সাংবাদিক করোনায় আক্রান্ত যাদের বেশ কয়েকজনের অবস্থা আশংকাজনক। এদিকে আজও পাবনায় আক্রান্তের সংখ্যা ২৯১ জন ও মৃত্যু ৩ জন। এমতাবস্থায় জনসাধারণ মানছে না লকডাউন তাদের মধ্যে কোন সচেতনতা নেই,নিজেদের প্রতি ও তার পরিবার এবং দেশের প্রতি ভালোবাসা নেই।

তাই পাবনা জেলা পুলিশকে অনুরোধ করছি
আপনারা আর মানবিকতা না দেখিয়ে কঠোর অবস্থান গ্রহণ করুন। জেলা পুলিশের কঠোর অবস্থানের আহবান জানাচ্ছি যেন পাবনায় সংক্রমণের হার কমে আসে।

উল্লেখ্য তারুণ্যের অগ্রযাত্রার সাত সদস্যের টিম জনসাধারণকে সচেতনতায় দিনের বেশীরভাগ সময় পার করছেন। তাদের এই সচেতনতামূলক কার্যক্রমকে প্রশংসনীয় উদ্যােগ বলে দাবি করেছেন অনেকেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *