মো রাশেদুল ইসলাম
মিঠাপুকুর( রংপুর) প্রতিনিধিঃ

রংপুরের মিঠাপুকুরে প্রেমিকের সঙ্গে বিয়ে না হওয়ায় অভিমানে এক মাদরাসাছাত্রী আত্মহত্যা করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

বৃহস্পতিবার (২০ মে) সকালে উপজেলার ফুলচৌকি গ্রামে প্রেমিক সাব্বির হোসেন আরমানের নানা বাড়ি থেকে ওই ছাত্রীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

এ ঘটনায় আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগ এনে তরুণীর ভাই বাদী হয়ে একটি মামলা করেছেন। ওই মামলার ভিত্তিতে প্রেমিক আরমান ও স্থানীয় এক ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) সদস্যকে (মেম্বার) আটক করেছে পুলিশ।

নিহত ছাত্রীর নাম মোসলেমা আক্তার মোহনা (১৮)। তিনি মিঠাপুকুর উপজেলার চেংমারী ইউনিয়নের চেংমারী গ্রামের কৃষক মোন্নাফ হোসেনের মেয়ে। তিনি স্থানীয় শুকুরেরহাট আলীম মাদরাসার আলিম প্রথম বর্ষের ছাত্রী ছিলেন।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, পাশের তিলকপাড়া গ্রামের আবদুল হাকিমের ছেলে সাব্বির হোসেন আরমানের সঙ্গে প্রায় এক বছর আগে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে মোহনার। তাদের মধ্যে মোবাইল ফোনে প্রায়ই যোগাযোগ হতো। আরমান বিভিন্নস্থানে ওই ছাত্রীকে নিয়ে ঘুরতেও বেরিয়েছেন। বুধবার (১৯ মে) বিকেলে আরমান বিয়ের কথা বলে মোহনাকে তার নানা আবদুর রশিদের বাড়ি ফুলচৌকি গ্রামে ডেকে নিয়ে যান। কথা ছিল সেখানে তারা বিয়ে রেজিস্ট্রি করবেন। সন্ধ্যায় নানার বাড়ি এলাকায় সন্দেহজনকভাবে ঘোরাফেরা করা অবস্থায় স্থানীয় লোকজন ওই দুজনকে আটক করে। পরে তারা বিয়ে করবেন বলে জানান। এ সময় ময়েনপুর ইউনিয়ন পরিষদের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার সাজেদুর রহমান তুহিন ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে তাদের বিয়েতে জটিলতা সৃষ্টি করেন। এক পর্যায়ে ছেলেটি আর বিয়ে করবেন না বলে জানান। এ খবর জানার পর ভোররাতে প্রেমিক আরমানের নানার বাড়িতেই একটি কক্ষে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে মোহনা আত্মহত্যা করেন।
এ ব্যাপারে মৃত ছাত্রী মোহনার বড় ভাই মোসলেম উদ্দিন অভিযোগ করে বলেন, তার বোনকে বিয়ের প্রলোভনে আরমান দীর্ঘদিন থেকে বিভিন্নস্থানে নিয়ে বেরিয়েছেন এবং মেলামেশা করেছেন। পরে বিয়ে না করায় ক্ষোভে-অভিমানে তার বোন আত্মহত্যা করেছেন।

তিনি আরও বলেন, স্থানীয় ইউপি সদস্য তুহিন বিয়েতে বাধা সৃষ্টি না করলে তার বোনকে এভাবে মরতে হতো না। তিনি ঘটনার সঙ্গে জড়িত ইউপি সদস্য তুহিন ও প্রেমিক আরমানের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন।

মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে জানিয়ে মিঠাপুকুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমিরুজ্জামান বলেন, ময়নাতদন্ত রিপোর্ট আসার পর মৃত্যুর কারণ জানা যাবে। তবে, আপাতদৃষ্টিতে ঘটনাটি আত্মহত্যা বলে ধারণা করা হচ্ছে। এ ঘটনায় আত্মহত্যার প্ররোচনায় মামলা হয়েছে। আটককৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *