মিরু হাসান বাপ্পী
আদমদিঘী (বগুড়া) প্রতিনিধি:

বগুড়া ডিবির অভিযানে প্রেমের নামে প্রতারণা ও অশ্লীল ছবি সংগ্রহ ও ধারণ করে ছড়িয়ে দেওয়ার মামলায় সারোয়ার আরিফ ওরফে আলিফ(২৫) নামে এক প্রতারককে গ্রেফতার করেছে বগুড়া জেলা গোয়েন্দা(ডিবি)। গ্রেফতারকৃত আলিফ ময়মনসিংহ জেলার ত্রিশাল থানার বিলবোকা এলাকার দেলোয়ার হোসেনের ছেলে। প্রতারণার শিকার হওয়া ভুক্তভোগী নারী ২৭ মে বগুড়া সদর থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে করা মামলা করলে শনিবার দিবাগত রাতে বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব থানাধীন রেল ষ্টেশনের মূল প্রবেশ পথের সামনে তাকে গ্রেফতার করা হয়। রোববার বিকালে ডিবির পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।

ডিবির ওসি আব্দুর রাজ্জাক জানান, গত বছরের মাঝামাঝি সময়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের মাধ্যমে ভুক্তভোগী নারীর সাথে আলিফের পরিচয় হয়। ফেসবুক আইডিতে চ্যাটিং ও মোবাইল ফোনের মাধ্যমে যোগাযোগের এক পর্যায়ে তার সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। সেই সূত্রে সে ওই নারীর সাথে নাটোরে দেখা করতে এসে ওইদিনই কুষ্টিয়াতে ঘুরতে যায় এবং ওই নারীকে কুষ্টিয়াতে একটি আবাসিক হোটেলে এক রুমে থাকতে বাধ্য করে। এতে ওই নারী রাগারাগি করে আলিফের সম্পর্ক না রাখার কথা জানালে সে ভয় দেখিয়ে সম্পর্ক রাখতে বাধ্য করে। পরবর্তীতে আলিফ ওই নারীকে বিবাহের প্রলোভন দেখালে সম্পর্কটি স্থায়ী করার সিদ্ধান্ত নেয় তারা। এরপর আলিফ ও ওই নারী খুলনা, সুন্দরবন, সেন্টমার্টিন, কিশোরগঞ্জ, ভৈরবসহ বিভিন্ন জায়গায় ঘুরতে যায়। সাত দিনের ট্যুরে সেন্টমার্টিন ঘুরতে গিয়ে হোটেল রুমে অবস্থানকালেআলিফ ওই নারীর অজান্তে গোপনে অশ্লীল ছবি ধারণ করে। ওই নারীর টাঙ্গাইল জেলায় পোষ্টিং হলে আলিফ নিজে বাসা ভাড়া করে ভয় দেখিয়ে সেই বাসায় থাকতে বাধ্য করে। এছাড়াও ওই নারীর পরিবার ও আত্বীয় স্বজনদের সাথে যোগাযোগ করতে বাধা প্রদানসহ নানা রকম শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন করতে থাকে। পরবর্তীতে ভুক্তভোগী নারী ঈদের ছুটিতে বাড়ি এসে অসুস্থতার কারণে আলিফসহসহ কারো সাথেই ফেসবুক ম্যাসেঞ্জারে যোগাযোগ করতে না পারায় সন্দেহ করে পূর্বের ধারনকৃত অশ্লীল ছবি আলিফ তার ব্যবহৃত ফেক ফেসবুক আইডি থেকে ম্যাসেজের মাধ্যমে ওই নারীর বন্ধু-বান্ধব, অফিস স্টাফসহ বিভিন্ন আত্বীয় স্বজনের মেসেঞ্জারে সেই ছবি ছড়িয়ে দেয় এবং বিভিন্নভাবে ভয়ভীতি প্রদর্শনসহ হুমকি দেয়।

ওসি আব্দুর রাজ্জাক আরো জানান, আলিফের মুঠোফোন জব্দ করা হয়েছে এবং ফোনে থাকা ফেক ফেসবুক আইডি থেকে অশ্লীল ছবি ছড়িয়ে দেয়ার প্রমাণ পাওয়া গেছে। এছাড়া তাকে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *