মোঃ আবু তৈয়ব. হাটহাজারী (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি :

চট্টগ্রামের ফটিকছড়িতে সন্তানদের চোখের সামনে খুন হওয়া গৃহবধু খতিজা বেগম খুকী (৪০) হত্যার প্রধান আসামী মানিককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ২৫ মে (মঙ্গলবার) রাত ১২টার দিকে ফটিকছড়ি উপজেলার পাইন্দং ইউনিয়নের বেড়াজালী এলাকা থেকে ফটিকছড়ি থানা পুলিশের একটি অভিযানিক দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করে৷ পরে তার স্বীকারোক্তি মতে, মানিকের বাড়ীর পাশ্বর্বতী একটি ডোবা থেকে ২ টি ছুরি ও ১টি ধামাদা উদ্ধার করে পুলিশ।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার (২০ মে) রাত ৩টার দিকে উপজেলার নাজিরহাট পৌরসভাধীন ৭নং ওয়ার্ডের নুরুল্লাহ মুন্সির বাড়ির প্রবাসী ইছা আহমদের ঘরের ছাদের সিঁড়ি রুমের গ্রিলের তালা ভেঙে প্রতিবেশী আজিজুর রহমানের পুত্র মানিক মিয়া(৩৫) ঘরে প্রবেশ করে খতিজাকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে নৃশংসভাবে হত্যা করে।

পুলিশ জানান, মানিককে গ্রেপ্তারের পর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে পরকীয়ার জেরে খতিজা আক্তার খুকিকে হত্যা করেছে বলে স্বীকার করেছে সে। পুলিশ আরো জানান, সে পেশায় একজন ইলেকট্রিক মিস্ত্রি। সে সুবাধে নিহত খতিজার ঘরে মানিকের নিয়মিত আসা-যাওয়া ছিল। একপর্যায়ে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে৷ যা পরে দৈহিক সম্পর্ক পর্যন্ত গড়ায়। খতিজার সাথে পরকীয়া চলা অবস্থায় তার বড় মেয়ে নিহার সাথেও মানিকের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। এরপর কাতারে পাড়ি জমান মানিক। প্রবাস থেকেও মানিকের সাথে নিয়মিত যোগাযোগ হতো মা-মেয়ের। তাদের জন্য বিভিন্ন সময় বিদেশ থেকে উপঢৌকন ও নগদ টাকা পাঠাতো সে। পরে মেয়ে নিহাকে মানিকের সাথে বিয়ে দেওয়ার কথা বলে তাকে দেশে আসতে বলেন খতিজা। দুই বছর পর মানিক কাতার থেকে ফেরার সময় তাকে রিসিভ করতে বিমানবন্দরে যান খতিজা ও মেয়ে নিহা।

সেবার কিছুদিন দেশে থেকে পুনরায় বিদেশ চলে যায় সে। দ্বিতীয়বার বিদেশ চলে যাওয়ার কয়েকদিনের মাথায় মানিকের সাথে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেন মা-মেয়ে। পরবর্তীতে মানিক জানতে পারে, তার সাথে খতিজার মেয়ে নিহাকে বিয়ে দেওয়ার কথা থাকলেও অন্যত্র বিয়ের কথা চূড়ান্ত হয়েছে। এ খবর জানতে পেরে দশ দিনের মাথায় দেশে ফিরে আসে মানিক। খতিজার সাথে দীর্ঘদিনের প্রেমের সম্পর্কে বিচ্ছিন্নতা ও বড় মেয়েকে বিয়ে করতে না পেরে হতাশায় দিনযাপন করতে থাকে মানিক। শেষ পর্যন্ত প্রেমের প্রতিশোধ নিতে খতিজাকে খুন করার পরিকল্পনা করে সে। অবশেষে খতিজার স্বামী ইসা আহমদ বিদেশ চলে যাওয়ার কয়েকদিনের মাথায় সুযোগ বুঝে খতিজাকে নৃশংসভাবে খুন করে মানিক।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ফটিকছড়ি থানার ওসি রবিউল ইসলাম বলেন, ‘গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। পরবর্তী আইনগত পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *