গোলাম মোস্তফা ফুলপুর প্রতিনিধি

ফুলপুরে সিএনজি অটোরিকশার ভাড়া নিয়ে প্রকাশ্য নৈরাজ্য চলছে।চালকের স্বেচ্ছাচারিতা চরমে পৌঁছেছে, যাত্রীদের পোহাতে হচ্ছে সীমাহীন দুর্ভোগ।যেমন খুশি তেমন’স্টাইলে ভাড়া হাঁকিয়ে যাত্রীদের গন্তব্যে যেতে বাধ্য করা হচ্ছে।চালকেদের এই স্বেচ্ছাচারিতা আর কতৃপক্ষের অব্যবস্থাপনার খেসারত দিতে হচ্ছে সাধারণ যাত্রীদের।সিএনজি অটোরিকশার মালিক ও চালকদের যথেচ্ছতা যেন অপ্রতিরোধ্য হয়ে উঠছে। তাদের কাছে জিম্মি হয়ে পড়েছে সাধারণ যাত্রীরা।

সরেজমিনে দেখা যায় ফুলপুর গোল চত্বর থেকে নকলা পর্যন্ত ৪০ টাকা ভাড়ার পরিবর্তে সিনএনজি সিন্ডিকেট যাত্রীদের কাছ নিচ্ছে ৮০ টাকা!ফুলপুর থেকে গোরধার বাজার শেরপুর,এবং ফুলপুর থেকে বালিয়া,বালিয়া বওলা থেকে ফুলপুর,তারাকান্দা এবং তারাকান্দা থেকে ময়মনসিংহ মহাসড়ক সহ অনান্য রোডের সিএনজি গুলোর ভাড়াও লাগামহীন।

অসাধু চালকদের ইচ্ছেমতো অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের প্রতিবাদ করতে গিয়ে সন্ত্রাসী প্রকৃতির চালকদের হাতে শারীরিক ভাবে নিগৃহীতের পাশাপাশি প্রতিনিয়ত অকথ্য ভাষায় গালি-গালাজের শিকার হচ্ছে সাধারণ যাত্রীরা।আবার অনেক ক্ষেত্রে অতিরিক্ত ভাড়া চাওয়ায় চালকদের উপরেও চড়াও হচ্ছে যাত্রীরা।

ফুলপুরের বাঁশতলা এলাকার নকলাগামী যাত্রী নুরজাহান আক্তার জানান আগে ফুলপুর থেকে নকলা যেতাম ৪০ টাকা দিয়ে আর এখন তার দ্বিগুণ গুনতে হচ্ছে।সেইসাথে আসা যাওয়া দ্বিগুণ ভাড়ার কোন প্রতিবাদ করলে উল্টো খারাপ আচারন করে।

ডাবল ভাড়া নেবার কি কারণ জানতে চাইলে সদুত্তর দিতে পারেনি কোন সিএনজি চালক।যাইলে যান না যাইলে বাদ দেন,কিছু করার নাই এমন আগ্রাসী আচরণ তাদের।এ ব্যাপারে কথিত লাইনম্যান মুকুলের সাথে যোগাযোগ করতে চাইলে তাকে খোঁজে পাওয়া যায়নি।

এসব দেখ-ভাল করার দায়িত্বে যারা রয়েছে তাদের কার্যকর ভূমিকা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছে যাত্রীরা লাগামহীন ভাড়া নিয়ন্ত্রনে প্রশাসনের দৃষ্টি কামনা করেছেন সাধারণ জনগণ।এবং দ্রুত যাতে বিষয়টিতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ হস্তক্ষেপ করে সেই দাবী জানিয়েছেন তারা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *