মিরু হাসান বাপ্পী
আদমদিঘী (বগুড়া) প্রতিনিধিঃ

রমজানের সিয়াম সাধনার মাসে প্রতিদিনই শত শত গরীব দুঃখী ও অসহায় মানুষের ঘরে ঘরে নিজ দায়িত্বে ইফতার সামগ্রী পৌঁছে দিচ্ছেন দানবীর খ্যাত শাজাহান সম্রাট। বগুড়া শহরের পুরান বগুড়ার বাঘ মার্কা মকবুল গুল ও সম্রাট জর্দা ফ্যাক্টরীর স্বত্বাধিকারী আলহাজ্ব মোঃ শাজাহান আলী সম্রাট, প্রতিনিয়তই অসহায় কর্মহীন, দুস্থ মানুষের পাশে থাকেন। এরই ধারাবাহিকতায় রমজান মাস উপলক্ষে গরীব দুঃখী মানুষের মাঝে করছেন ইফতার সামগ্রী বিতরণ।

প্রতিদিন তিন থেকে চারশত মানুষের জন্য রান্না হচ্ছে খাবার, নিজ বাড়িতেই খাবার প্যাকেট করে পৌঁছে দিচ্ছেন অসহায় মানুষের বাড়ি বাড়ি। শুধু তাই নয় দানবীর খ্যাত প্রচার বিমুখ এই মানুষটি দেশে করোনার দ্বিতীয় দফা লকডাউনেও পূর্বের ন্যায় সাধারণ মানুষের পাশে আছেন। প্রতিদিনই শত শত মানুষের মাঝে খাদ্য ও বস্ত্র বিতরন করেই চলেছেন। এ খাদ্য সামগ্রীতে রয়েছে, ভাতের চাল,ডাল,তৈল সহ নগদ অর্থ, বস্ত্র সামগ্রীতে আছে মহিলাদের শাড়ী, পুরুষদের জন্য লুঙ্গি ও অল্প বয়সী মেয়েদের জন্য থ্রী-পিছ। গত বছরের ২৫ মার্চ ২০ইং থেকে শুরু করা এ কর্মসূচীতে প্রায় ত্রিশ থেকে চল্লিশ হাজার দুস্থ ও কর্মহীন পরিবারের মানুষদের মাঝে এ খাদ্য ও বস্ত্র সামগ্রী বিতরণ শুরু করেন যা এখনো অব্যাহত রয়েছে। করোনা ভাইরাসে দেশ যখন সংকটময় মুহুর্তে, মানুষ হয়ে পড়েছে ক্ষুধার্থ ও কর্মহীন লকডাউনের মধ্যে পবিত্র মাহে রমজানের আগমন ঠিক তখনি দানবীরের বেশে দুস্থ ও কর্মহীন মানুষের মাঝে এগিয়ে এসেছেন আলহাজ্ব শাজাহান আলী সম্রাট।

পবিত্র রমজানে ইফতারের আগ মুহূর্তে তৈরি খাবার বাড়ীতে বাড়ীতে পৌঁছানো ছাড়াও পুরান বগুড়ার ওয়াপদার গেট সংলগ্ন স্টেশন রোডে নিজে দাড়িয়ে থেকে শত শত রিক্সা,ভ্যান ও ইজিবাইক চালকের হাতে পৌঁছে দিচ্ছেন খাবারের প্যাকেট। এলাকার তরুন ও যুব সমাজ, শাজাহান সম্রাটের এই মহৎ উদ্দ্যেগে সেচ্ছায় এগিয়ে এসে শ্রম দিচ্ছেন। বিশ্বস্ত সূত্রে জানা গেছে, তিনি নিজেকে আড়ালে রেখে বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন ও ব্যাক্তিদের মাধ্যমে প্রচুর পরিমানে খাদ্য দ্রব্য ও নগদ অর্থ দিয়ে সহযোগীতা করছেন প্রতিনিয়ত। শাজাহান সম্রাট তার নামের যথাযথ সু-বিচার করছেন, সমাজের বিত্তশালীরা তার কাছ থেকে শিক্ষা গ্রহন করে অসহায় ও দুস্থ মানুষের সেবায় ব্রুত হয়ে পাশে দাড়ানো উচিত। মানবতার এক বড় উদাহরণ ও অসহায় মানুষের সম্রাট’ই এই শাজাহান সম্রাট। এমন সম্রাট বেঁচে থাকুক শত বছর, সমাজে তৈরি হোক এমন হাজারো দানবীর নাম হোক গরীবের “সম্রাট।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *