নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
বগুড়ায় মিস্ত্রীদের কমিশনের টাকা ভাগবাটোয়ারা নিয়ে দু’পক্ষের মারামারিতে মোছাঃ ঝরনা বেগম (৫২) নামের এক মহিলা বাধা দিতে গিয়ে গুরুত্বর আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। বৃহস্পতিবার (৩ জুন) দুপুরে সদরের বারপুর উত্তরপাড়া এলাকায় এঘটনা ঘটে। আহত ঝরনা বেগম ঐ এলাকার বাদশা মিয়ার স্ত্রী।

ঘটনাস্থলে গিয়ে পুলিশ ও স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার দুপুরে বগুড়া সদরের বারপুর উত্তরপাড়ার থাই মিস্ত্রী স্বাধীন এবং দশটিকা গ্রামের টাইলস মিস্ত্রী আমিনুল ইসলামের মধ্যে কমিশনের টাকা ভাগ বাটোয়ারা নিয়ে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে তুমুল মারামারি শুরু হলে পার্শ্বের বাড়ির ঝরনা বেগম দ্রুত এগিয়ে এসে মারামারি থামানো জন্য চেষ্টা করে। তখন আমিনুলের প্রতিবেশি গোফ্ফারের ছেলে নুর আলম ঝরনা বেগমের পিঠে লাঠি দিয়ে আঘাত করে এবং তার সহযোগী ঝরনার চোখেমুখে এলোপাতারি কিলঘুসি মারতে থাকে তখন ঝরনা মাটিতে লুটিয়ে পড়ে।

এলাকাবাসী পরিস্থিতি সামলাতে ৯৯৯-এ কল করলে বগুড়া উপশহর পুলিশ ফাড়ি থেকে দু’জন পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে এবং স্থানীয় ইউপি সদস্যকে দায়িত্বদেন আর যাতে কোনরুপ অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে।

এদিকে গুরুত্বর আহত ঝরনা বেগমের বাড়িতে কোন ছেলে মানুষ না থাকায় তার মেয়ে জামাইকে খবর দিলে মেয়ে জামাই আরিফুল ইসলাম এলাকাবাসীর সহযোগিতায় তার শাশুড়ি ঝরনা বেগমকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে দেন। এঘটনায় আহত ঝরনা বেগমের পক্ষ থেকে থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *