মো.সোহেল রানা, মুন্সীগঞ্জ জেলা প্রতিনিধিঃ মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর উপজেলার ঢ়াড়িখাল ইউনিয়নের বালাসুর গ্রামে অগ্রসর বিক্রমপুর ফাউন্ডে পরিচালিত ‘বিক্রমপুর জাদুঘরে’ পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় দুর্লভ প্রজাতির ২০০টি গাছের চারা রোপণ করা হয়েছে।
আজ শনিবার সকালে বিক্রমপুর জাদুঘর চত্তরে প্রকৃতি ও পরিবেশ বিষয়ক সংগঠন তরুপল্লব ও স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক এসব গাছের চারা দান করেন।

বালাসুর গ্রামে অগ্রসর বিক্রমপুর ফাউন্ডেশন তাহাদের পরিচালিত ‘বিক্রমপুর জাদুঘর’ প্রাঙ্গনে এ গাছের চারা সংগঠনের পক্ষ থেকে রোপন করা হয়। উল্লেখ্য যে এই পরিত্যাক্ত বাড়িটি ছিল সাবেক জমিদার যদুনাথ রায়ের। তিনি অনেক দুর্লভ গাছ বপন করেছিলেন এখনো কিছু কিছু গাছ আছে বিশেষ করে অনেক বড় একটি নাগলিঙ্গম গাছ, তমাল গাছ, জামরুল গাছ আছে এগুলো সবই শতবছর আগের। এবং তারই ধারাবাহিকতায় অগ্রসর বিক্রমপুর ফাউন্ডেশনের এই দুর্লভ প্রজাতি গাছের চারা রোপণের আয়োজন করে।

স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকের এবং তরু পল্লবের সহযোগিতায় এই বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি উদ্বোধন করেন প্রখ্যাত সাহিত্যিক সেলিনা হোসেন বৃক্ষপ্রেমি মোকাররম হোসেন, অগ্রসর বিক্রমপুর ফাউন্ডেশনের সহ-সভাপতি অধ্যাপক ডা. আবব্দুল মালেক ভূইয়া।
এই বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন
অগ্রসর বিক্রমপুর ফাউন্ডেশনের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক কথাশিল্পী ঝর্না রহমান, অগ্রসর বিক্রমপুর ফাউন্ডেশনের কার্যকরী পরিষদের সদস্য হানিফ বেপারীসহ তরুপল্লব ও স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক এর অন্যান্য কর্মকর্তা বৃন্দ৷

দুর্লভ প্রজাতির উদ্ভিদগুলির মধ্যে স্বর্ণচাঁপা, নাগমণি, জগডুমুর, কনকচাঁপা, শিউলি, সোনালু, জ্যাকারান্ডা, নাগলিঙ্গম, গর্জন, রক্তন, নারিকেল, বৌদ্ধ নারিকেল, উদাল, আমড়া, ডেউয়া, সুপারি, হরীতকী গাছের চারা অন্যতম।

এই দুর্লভ গাছের চারা উপহার দেওয়ার জন্য অগ্রসর বিক্রমপুর ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে তরুপল্লব ও স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক এর সকলের প্রতি আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন৷

Leave a Reply