বিরামপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি:

দিনাজপুরের বিরামপুরে সন্ধ্যা হেমরম (২৮) নামের এক গৃহবুধর গলায় ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিরামপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুমন কুমার মহন্ত।

(১০ অক্টোবর) রবিবার বিকেল সাড়ে ৩ টার দিকে পৌর শহর এলাকা টাটকপুর (বেলডাঙ্গা) এ ঘটনা ঘটে। তিনি ওই এলাকার যোহান হেমরম এর মেয়ে সন্ধ্যা হেমরম (২৮)।

বিরামপুর থানার তদন্ত (ওসি) মতিয়ার রহমান বলেন, পৌর শহর এলাকা টাটকপুর (বেলডাঙ্গা)যোহান হেমরম এর মেয়ে সন্ধ্যা হেমরম ওড়না গলায় পেঁচিয়ে নিজ ঘরের বরগায় ফাঁস দিয়ে আত্নহত্যা করে। স্বজনদের বরাদ দিয়ে তিনি আরো বলেন, ৩-৪ মাস আগে স্বামীকে সে নিজেই ডিভোর্স দেয়। স্বামীকে ডিভোর্স দেওয়ার পর থেকে সন্ধ্যা হেমরম বেলডাঙ্গায় মায়ের বাড়িতে থাকতো। রবিবার বিকেলে তার মা গরুর জন্য ঘাস কাটতে গেলে সবার অগোচরে নিজ ঘরে জানালা দরজা বন্ধ করে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে ফাঁস দেয়। পরে গ্রামবাসী পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ গিয়ে নিহতের লাশ ঝুলন্ত অবস্থায় ঘর থেকে উদ্ধার করে।

বিরামপুর থানার ভারপ্রাপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সুমন কুমার মহন্ত ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, সন্ধ্যা হেমরম নামে এক গৃহবুধ গলায় ওড়না পেঁচিয়ে নিজ ঘরের বরগায় ফাঁস দিয়ে আত্নহত্যা করে।এলাকাবাসী বিরামপুর থানায় সংবাদ দিলে অফিসার ও পুলিশ ফোর্সসহ সেখানে উপস্থিত হয়ে লাশের সুরতহাল রিপোর্ট প্রস্তুত করেন। নিহতের লাশের সুরতহাল রিপোর্ট ও প্রাথমিক তদন্তে এটি একটি আত্মাহত্যা মর্মে প্রতীয়মান হয়। এলাকাবাসীর ও নিহতের মায়ের আবেদনের প্রেক্ষিতে ময়না তদন্ত ছাড়াই সৎকারের জন্য নিহতের লাশটি পরিবারের মাঝে হস্তান্তর করা হয়। এ ব্যাপারে থানায় একটি ইউডি মামলা করা হয়।

Leave a Reply