সোলাইমান, মাভাবিপ্রবি প্রতিনিধিঃ বিশ্বসেরা গবেষকের তালিকায় মাভাবিপ্রবির ১৩ শিক্ষক ও একজন সাবেক শিক্ষার্থীর নাম।
অ্যালপার ডগার (এডি) সায়েন্টিফিক ইনডেক্সের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত বিশ্বসেরা গবেষকদের তালিকায় চলতি বছর স্থান পেয়েছে মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (মাভাবিপ্রবি) ১৪ জন গবেষক।

এর মধ্যে ১৩ জন শিক্ষক এবং একজন সাবেক শিক্ষার্থী। রবিবার (১০অক্টোবর) এডি সায়েন্টিফিক ইনডেক্সের ওয়েবসাইট থেকে জানা যায়, তালিকায় বিশ্বের সাত লাখ আট হাজার ৪৮০ জন গবেষক ঠাই পেয়েছেন। যেখানে বাংলাদেশের রয়েছেন এক হাজার ৭৯১ জন।

এডি সায়েন্টিফিক ইনডেক্সের এ তালিকায় ১২ ক্যাটাগরিতে সকল গবেষকদের ভাগ করা হয়েছে। যেখানে মাভাবিপ্রবির ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনোলজি ক্যাটাগরিতে সাতজন, ন্যাচারাল সায়েন্সে তিনজন, মেডিকেল অ্যান্ড হেলথ ক্যাটাগরিতে দুইজন, ল অ্যান্ড লিগ্যাল স্টাডিজে একজন এবং বিজনেস অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট ক্যাটাগরিতে একজন স্থান পেয়েছেন। তালিকায় মাভাবিপ্রবির সেরা ৫ গবেষকদের মধ্যে প্রথম স্থানে রয়েছেন ইনফরমেশন অ্যান্ড কমিউনিকেশন টেকনোলজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মো. কাউছার আহমেদ।

কম্পিউটার সায়েন্স বিষয়ে গবেষণায় বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রথম, বাংলাদেশে চতুর্থ, এশিয়ায় ১৬৪৫তম এবং বিশ্বে ৬৬৮৫তম অবস্থানে আছেন তিনি। দ্বিতীয় স্থানে রয়েছেন একই বিভাগের প্রভাষক বিকাশ কুমার পাল। ইলেক্ট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয়ে গবেষণায় বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রথম, বাংলাদেশে পঞ্চম, এশিয়ায় ১৬৩৫তম এবং বিশ্বে ৫৫৩০তম অবস্থানে আছেন তিনি। তৃতীয় স্থানে রয়েছেন একই বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক আলী নেওয়াজ বাহার।

ফিজিক্স বিষয়ে গবেষণায় বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রথম, বাংলাদেশে অষ্টম, এশিয়ায় ২১১৯তম এবং বিশ্বে ১০৯৪৪তম অবস্থানে আছেন তিনি। চতুর্থ স্থানে রয়েছেন ক্রিমিনোলজি অ্যান্ড পুলিশ সায়েন্স বিভাগের সাবেক শিক্ষার্থী এবং বাংলাদেশ পুলিশের উপ পরিদর্শক কামরুজ্জামান সোহাগ। ল অ্যান্ড লিগ্যাল স্টাডিজ বিষয়ে গবেষণায় বিশ্ববিদ্যালয়ে এবং বাংলাদেশে প্রথম, এশিয়ায় ৫৭তম এবং বিশ্বে ১৩৫৪তম অবস্থানে আছেন তিনি। পঞ্চম স্থানে রয়েছেন ফার্মেসী বিভাগের প্রভাষক মো. মনির হোসেন। এ সংক্রান্ত বিষয়ে তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রথম, বাংলাদেশে ২৮তম, এশিয়ায় ৬০৬তম এবং বিশ্বে ১৫৪৯তম অবস্থানে আছেন।

এছাড়াও গবেষণায় বিশ্ববিদ্যালয়ে ৬ষ্ঠ স্থানে রয়েছেন আইসিটি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মো. আহসান হাবীব, সপ্তম স্থানে রয়েছেন পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. আনোয়ার হোসেন, অষ্টম স্থানে রয়েছেন আইসিটি বিভাগের অধ্যাপক ড. সাজ্জাদ ওয়াহিদ, নবম স্থানে রয়েছেন বিবিএ বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. সৈয়দ মওদুদ-উল-হক, দশম স্থানে রয়েছেন ইএসআরএম বিভাগের অধ্যাপক ড. এ. এস. এম. সাইফুল্লাহ, ১১তম স্থানে রয়েছেন এফটিএনএস বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. মো. জয়নুল আবেদীন, ১২তম স্থানে রয়েছেন একই বিভাগের অধ্যাপক ড. এ. কে. ওবায়দুল হক, ১৩তম স্থানে রয়েছেন রসায়ন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. আশীষ কুমার সরকার এবং ১৪তম স্থানে রয়েছেন আইসিটি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মোহাম্মদ বদরুল আলম মিয়া।

গবেষকদের গুগল স্কলারের রিসার্চ প্রোফাইলের বিগত ৫ বছরের এইচ-ইনডেক্স, আই১০ ইনডেক্স স্কোর এবং সাইটেশনের ওপর ভিত্তি করে তালিকাটি প্রকাশ করেছে এডি সায়েন্টিফিক ইনডেক্স।

Leave a Reply