সুজন কুমার,নাটোর প্রতিনিধিঃ

নাটোর জেলার বড়াইগ্রাম উপজেলার জোনাইল ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ আবুল আছর শফিউজ্জামান(বিন্দু) এর বিরুদ্ধে দূর্নীতি,অনিয়ম,ঘুষকারবারি,মিথ্যা নিয়োগ বানিজ্য,মসজিদের টাকা আত্মসাৎ,জমি দখল সহ বিভিন্ন অভিযোগ তুলে সংবাদ সম্মেলন করেন জোনাইল ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ,আওয়ামী যুবলীগ,ছাত্রলীগ ও এলাকার জনসাধারণ। মঙ্গলবার সকালে জোনাইল বঙ্গবন্ধু স্মৃতিপরিষদে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ তুলে ধরেন নেতাকর্মীরা ও হয়রানির শিকার আবু তালেব।

আবু তালেব বলেন,শফিউজ্জামান সাহেব ২০০৩ সালে আমাকে পিওন হিসাবে নিয়োগ দেওয়ার কথা বলে আমার কাছে ২ লক্ষ টাকা দাবী করে। আমি জমি বিক্রি করে তার হাতে দুই লক্ষ টাকা দিই। কলেজে নিয়োগ দেওয়ার কথা থাকলেও আমাকে তার ব্যক্তিগত কাজে নিযুক্ত করে এবং আমাকে দিয়ে বিভিন্ন কাগজে স্বাক্ষর করিয়ে নেয় আর চাকরের মত খাটায়। এতকিছুর পরও আজ পর্যন্ত আমি কোনো বেতন পাইনি। বেতন চাইলে বিভিন্ন সমস্যা দেখিয়ে আমাকে শান্তনা দেয়। তার কাজ করার সময় আমার সামনে সে বিভিন্ন জনকে মিথ্যা আশ্বাস দেয়। এভাবে আমার সন্দেহ হলে আমি তাকে বলি হয় আমার টাকা ফেরত দেন নাহলে আমার নিয়োগপত্র দেন। একপর্যায় তার সাথে আমার কথাকাটাকাটি হয়।এ বিষয়ে কলেজ কতৃপক্ষ সমাধানের চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়। পরে আমি ইউএনও স্যারের কাছে লিখিত অভিযোগ দিই।

জোনাইল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুস সোবহান হারেজ বলেন,আমি ২৮ বছর ধরে জোনাইল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করে আসছি। এত বছরের অভিজ্ঞতায় শফিউজ্জামানের মত দূর্নীতিবাজ মানুষ আমি দেখি নাই। জোনাইল ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ হওয়ার পর তিনি প্রায় সত্তর বিঘা সম্পত্তির মালিক হয়েছেন। তার বাড়ি বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর বাড়ির থেকেও ব্যয়বহুল। এত অর্থের উৎস কি তার সঠিক তদন্ত করার জন্য আমি প্রশাসনকে অনুরোধ করছি।

জোনাইল ইউপি চেয়ারম্যান তোজাম্মেল হক বলেন,জোনাইল কলেজের অধ্যক্ষ একজন অসৎ ব্যাক্তি। জোনাইলের অনেক গরীব মানুষকে চাকরি দেওয়ার নাম করে বিন্দু সাহেব তাদের জমি নিজের নামে লিখে নিয়েছেন। এই ধরনের ব্যাক্তি কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে থাকার যোগ্যতা রাখে না। তাই অবিলম্বে এই ধরনের ব্যাক্তিকে আইনের আওতায় আনা উচিৎ বলে আমি মনে করি।

এছাড়াও অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগ নিয়ে বক্তব্য রাখেন জোনাইল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি মোঃ আব্দুল হামিদ সরকার,জোনাইল ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলী সিদ্দিকী,জোনাইল এম এল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আশিকুজ্জামান আইয়ুব,জোনাইল ইউনিয়ন আওয়ামী যুবলীগের সভাপতি মোঃ আল-মামুন,সম্পাদক মোঃ মাসুম আহম্মেদ।

এ সময় জোনাইল ইউনিয়নয়ের বিভিন্ন ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ, যুবলীগ,ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ,ভুক্তভোগী জনসাধারন, সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *