সুজন কুমার,নাটোর প্রতিনিধিঃ নাটোর বড়াইগ্রামের জোনাইল ইউনিয়ন আওয়ামী যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মাসুম হোসেনসহ আরও তিন নেতাকর্মীদেরকে নিষিদ্ধ সংগঠন আনছারুল্লাহ বাংলা টিমের সদস্য হিসাবে অপপ্রচার ও থানায় মিথ্যা অভিযোগ দায়েরের প্রতিবাদে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে জোনাইল বাজারে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি পরিষদের সামনে বৃষ্টি উপেক্ষা করে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ-যুবলীগ ও ছাত্রলীগের উদ্যোগে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধনকালে জোনাইল ইউপি চেয়ারম্যান তোজাম্মেল হক, জোনাইল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুস সোবহান হারেজ, সাবেক সভাপতি আব্দুল হামিদ সরকার, বীরমুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলী সিদ্দিকী, যুবলীগ সভাপতি আল মামুন, সম্পাদক মাসুম হোসেন ও জোনাইল এম এল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আশিকুজ্জামান আইয়ুব বক্তব্য রাখেন। এ সময় বক্তারা বলেন, সম্প্রতি জোনাইল ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ আবুল আছ শফিউজ্জামান (বিন্দু) জোনাইল ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক চৌমুহন গ্রামের বাসিন্দা মাসুম হোসেন, ৯ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আবু তালেব, জোনাইল ইউনিয়ন যুবলীগের কৃষি বিষয়ক সম্পাদক মাইনুর শেখ, ৯ নং ওয়ার্ড যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ লিটন হোসেন ও আওয়ামী লীগ কর্মী সোনাউল্লাহ শেখের বিরুদ্ধে থানায় মিথ্যা অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগে তারা নিষিদ্ধ সংগঠন আনছারুল্লাহ বাংলা টিমের সদস্য হিসাবে চিঠি দিয়ে অধ্যক্ষকে হত্যার হুমকি দিয়েছেন মর্মে উল্লেখ করেন। প্রকৃতপক্ষে, চৌমুহন গ্রামের আবু তালেবের কাছ থেকে এমএলএসএস পদের বিপরীতে দুই লাখ টাকা নিলেও তিনি তাকে চাকরী দেননি। এ টাকা ফেরৎ চাওয়ার কারণে এবং পূর্ব থেকে চলে আসা পারিবারিক দ্বন্দ্বের জের ধরেই তিনি আবু তালেব ও তার ভাতিজা মাসুমসহ অন্যদের নামে এ সাজানো অভিযোগ দায়ের করেছেন বলে তারা দাবী করেন। এ সময় জোনাইল ইউনিয়ন আওয়ামী যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ মাসুম হোসেন বলেন, আমার বাবা-দাদারা আওয়ামীলীগ করতো। আমি জন্মসূত্রে আওয়ামী লীগ পরিবারের সন্তান এবং যুবলীগের কর্মী। আমাকে নিষিদ্ধ সংগঠন আনছারুল্লা বাংলা টিমের সদস্য বানিয়ে অপপ্রচার চালানোয় আমি তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি এবং দ্রুত এই ধরনে দূর্নীতি পরায়ন অধ্যক্ষের বিচারের দাবি জানাচ্ছি। এ সময় বক্তারা সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে উড়োচিঠির প্রকৃত রহস্য উদঘাটন এবং অবিলম্বে নেতাকর্মীদের নামে দায়ের করা অসত্য অভিযোগ প্রত্যাহারের দাবী জানান। অন্যথায় আগামীদিনে আরো কঠোর আন্দোলনের হুশিয়ারী দেন তারা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *