সুজন কুমার,নিজস্ব প্রতিনিধিঃ
নাটোরের বড়াইগ্রামে মতিউর রহমান (৩২) নামের এক যুবককে কুপিয়ে কান কেটে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। বুধবার বিকেলে উপজেলার বড়াইগ্রাম মধ্যপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। আহত অবস্থায় মতিউরকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

মতিউরের স্ত্রী পেয়ারা বেগম বাদী হয়ে শুক্রবার থানায় মামলা দায়ের করেছে।

ইজাহার সুত্রে জানা যায়, মতিউরের বাড়ির পাশে একটি মসজিদ আছে। মসজিদে যাতায়াতের জন্য একটি রাস্তা আছে। সেই রাস্তাটির পাশে মৃত হাতেম খাঁ এর ওয়ারিশদের জমি ভোগ দখল করে একই গ্রামে মৃত আসমত আলী পুত্র সুজন (৩৫)। সুজন পুকুর সংস্কারের নামে রাস্তা কেটে জোড় পুর্বক মতিউরের পুুকুর ভোগ দখল করেছে। মতিউর চাকুরি সুত্রে বাহিরে থাকায় সে বিষয়ে কোন পদক্ষেপ নেয় নাই। বাড়িতে এসে পৌরসভায় রাস্তা পরিমাপের জন্য আবেদন করে। আবেদনের পরেই ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে সুজন। বুধবার সকালে ঝড়ে পরে যাওয়া একটি বাঁশ কাটতে গেলে সুজন মতিউরকে হাসুয়া দিয়ে কোপ দিয়ে কান কেটে দেয়। তাকে উদ্ধার করতে এগিয়ে আসলে মতিউরের ৬ মাসে আন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী ও বিধবা ভাবিকে এলোপাতারি পিটিয়ে আহত করে সুজনসহ আরো কয়েকজন।

সুজন বলেন, আমার নিজের জমি মাটি কেটে নিতে সে অভিযোগ দেয়। অথচ সরকারি রাস্তা বাশেঁর ঝাড়ে বাশঁ কাটতে যায়। আমার মা নিষেধ করলে মাকে লাঞ্চিত করে। আমি এগিয়ে গেলে আমাকে মারতে আসে। আমি দৌড় দিলে পিছন থেকে আমাকে তারাতে গিয়ে পরে গিয়ে কান কেটে যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *