সুজন কুমার,নাটোর প্রতিনিধি:

নাটোরের বড়াইগ্রামে লিয়াকত আলী (৬৬) নামের এক ব্যাক্তিকে মাইক্রোবাস চাপা দিয়ে হত্যা চেষ্টার মামলায় বড়াইগ্রাম সরকারী কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি হাসানুর জামান শিপনকে (২২) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। সোমবার ভোর রাতে উপজেলার উপলশহর থেকে তাকে আটক করা হয়। গ্রেপ্তার শিপন উপজেলার উপলশহর গ্রামের আব্দুল আজিজ প্রামানিকের ছেলে। রবিবার রাতে লিয়াকতের শ্যালক রেজাউল ইসলাম বাদী হয়ে বড়াইগ্রাম থানায় মামলা করেছে।

লিয়াকতের ছেলে জহুরুল ইসলাম জানান,আমার ফুফাত ভাই উপলশহর গ্রামের মৃত বাস্ত মন্ডলের ছেলে ইয়ার উদ্দিনের পৈতৃক ভুমির বাড়ির উপর দিয়ে রাস্তা দাবী করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার বরাবর আবেদন করে শিপন। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সরকারী নিয়ম অনুযায়ী রাস্তার ব্যবস্থা করে দেন। কিন্তু শিপন সেই রাস্তা নিয়ে সন্তুষ্টি হয় না। আমার বাবা ইয়ার উদ্দিনকে সার্বিক সহযোগীতা করার কারনে গত ৪ই মে রাত ১১ টার দিকে চা খেয়ে বাড়িতে ফেরার পথে উপলশহর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সংলগ্ন গভীর নলকূপের কাছে মাইক্রোবাস চাপা দিয়ে পালিয়ে যায়। পরবর্তী বিভিন্ন তথ্যের ভিত্তিতে নিশ্চিত হয়ে রবিবার রাতে মামলা দায়ের করলে ভোর রাতে তাকে গ্রেপ্তার করে।

তিনি আরো জানান, ডাক্তার বলেছে তার বাবার বুকের ৭টি হার, হাটুর উপরে ভেঙ্গে গিয়েছে, মাথায় আঘাতে রক্তক্ষরণ হয়ে জমাট বেধে গেছে। ২৭ ব্যাগ রক্ত রাত শরীরে পুষ করানো হয়েছে।

উপজেলা ছাত্রলীগের সম্পাদক মানিক রায়হান বলেন, বড়াইগ্রাম সরকারী কলেজ হওয়ায় জেলা কমিটি ব্যবস্থা গ্রহন করবে।

বড়াইগ্রাম থানা উপ-পরিদর্শক আব্দুর জব্বার বলেন, চাপা দেওয়া গাড়ীর অনুসন্ধানে নামে পুলিশ। তদন্ত শেষে নিশ্চিত হওয়া যায় যে জমি সক্রান্ত আক্রোশের কারনে শিপন লিয়াকতকে চাপা দিয়ে হত্যার পরিকল্পনা করেছিল। লিয়াকতের শ্যালক বাদী হয়ে বড়াইগ্রাম থানায় মামলা করলে পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে আদালতে প্রেরণ করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *