জেকে বিশ্বাস ডিউক
চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি :

চিকিৎসা শেষে ভারত থেকে দেশে ফেরা রোগীদের সাথে দ্বিমুখী আচরণ করা হচ্ছে। জানা গেছে পেট্রাপোল বেনাপোল সীমান্ত দিয়ে যেসব বাংলাদেশি দেশে প্রবেশ করেছেন তাদের জন্য ১৪ দিনের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন বাধ্যতামূলক করা হয়েছে কিন্তু যেসব বাংলাদেশি রোগী আগরতলা আখাউড়া সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করেছেন তাদের বেলায় কোন প্রকার প্রাতিষ্ঠানিক করেনটাইন মানা হচ্ছে না। সীমান্ত থেকে দেশে প্রবেশের সাথে সাথে তাদের নিজ জেলায় পাঠিয়ে দেওয়া হচ্ছে নিজ বাসায় করেনটাইনে থাকার জন্য।
বেনাপোল দিয়ে প্রবেশ করা বিপুল সংখ্যক বাংলাদেশি বর্তমানে বেনাপোল, যশোর, ঝিনাইদহ, খুলনা , সাতক্ষীরা ও নড়াইলের বিভিন্ন হোটেলে অবস্থান করছেন, হোটেলে নিজ খরচে থাকা নিজ খরচে খাওয়া-দাওয়া নিয়ে অনেকেই পড়েছেন বিশাল আর্থিক সঙ্কটে। বহু টাকা ব্যয়ে চিকিৎসা শেষে দেশে ফিরে ১৪ দিনের প্রাতিষ্ঠানিক করেনটাইন মরার উপর খাড়ার ঘা হয়ে দাঁড়িয়েছে।

আবার ভারত ফেরত যাত্রীরা বলেছেন বেনাপোল সীমান্ত দিয়ে প্রতিদিন প্রায় ১০০০ ভারতীয় ট্রাক পণ্য নিয়ে আমাদের দেশে প্রবেশ করছে , ড্রাইভার ও খালাসী দিয়ে প্রায় 2 হাজার ভারতীয় প্রতিদিন মালামাল নিয়ে এ দেশে আসছেন। আমরাতো করণা নেগেটিভ সার্টিফিকেট নিয়ে দেশে প্রবেশ করেছি কিন্তু এই দুই হাজার ভারতীয় কোন প্রকার করোনা সনদ ছাড়াই প্রতিদিন আসছেন এবং যাচ্ছেন তাদের দিয়ে কি করোনা ছড়াবে না?
ভারত ফেরত যাত্রীরা সকলেই দুরারোগ্য রোগে আক্রান্ত, মানবিক দিক বিবেচনায় জরুরী ভিত্তিতে এসব রোগীকে বাসায় পাঠানো উচিত, সকলের দাবি আমরা করেনটাইনে থাকতে চাই কিন্তু সেটা নিজ বাসায় অথবা নিজ জেলায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *