মোঃরফিকুল ইসলাম,মহাদেবপুর,নওগাঁ জেলা প্রতিনিধি : মাথার ঘাম পায়ে ফেলে উৎপাদন করা ফুল কপির দাম নওগাঁ জেলার চাষীরা না পাওয়ায় হতাশাই রয়েছে। প্রতি পিচ কপি ২/৩ টাকায় বিক্রি করছে। জেলার বিভিন্ন বাজার ঘুরে একই চিত্র দেখাগেছে। নওগাঁ কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তরের উপ পরিচালক শামসুল ওয়াদুদ জানান, ফুল কপি উঁচু জমিতে চাষ হয়। ফলে এবার নওগাঁ জেলায় বন্যাতে কপি চাষের উপর কোন প্রভাব পরেনি। তাই কৃষকরা সময় মত কপি চাষ করতে পেরেছেন। নওগাঁ জেলায় এবার মোট ৭’শ ১০ হেক্টর জমিতে ফুল কপি চাষ হয়েছে। প্রতি হেক্টর জমিতে ২২ থেকে ২৪ মেট্রিক টন কপি উৎপাদন হবে বলেও আশা প্রকাশ করেন তিনি। নওগাঁ জেলা সদর উপজেলার বর্ষইল ও পত্নীতলা, বদলগাছী, মহাদেবপুর ও মান্দা উপজেলায় কপি চাষ করে থাকেন কৃষক।
যদিও রাজধানীর বাজারে এর দাম ১৫-২০ টাকা। এজন্য ফসলের ন্যায্য মূল্য নিশ্চিতের দাবিতে বিক্ষোভ করেছেন ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকরা। শুক্রবার (৮ ফেব্রুয়ারি) নওগাঁ সদরের কীর্ত্তিপুর বাজারে বদলগাছী সড়কে কপি ফেলে প্রতিবাদ করেন কৃষকরা। কৃষক স্বার্থ রক্ষা কমিটির ব্যানারে আয়োজিত প্রতিবাদ সভায় বলা হয়, নওগাঁর হাটগুলোয় বাধা কপি ও ফুল কপির প্রতিটি ২ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। ফলে কৃষক ন্যায্য মূল্য থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। সঠিক বাজার মনিটরিং না থাকায় সিন্ডিকেট চক্র বাজার নিয়ন্ত্রণ করায় ফসলের ন্যায্য দাম পাচ্ছেন না বলে কৃষকরা অভিযোগ করেন।

Leave a Reply