মো.সোহেল রানা, মুন্সীগঞ্জ জেলা প্রতিনিধিঃ
মুন্সীগঞ্জের লৌহজংয়ের ভোটার আইডি কার্ড অনুয়ায়ী বাবা-ছেলের জম্ম একই দিনে। ভোটার আইডিতে ছেলের জম্ম তারিখ বাবার আইডিতে লিপি হওয়ায় বয়স্ক ভাতা পাচ্ছেন না হতদরিদ্র বৃদ্ধ মোঃ জুলহাস শেখ তার জন্ম ১৯৩৩ সনে বয়স ৮৮ বছর। জাতীয় পরিচয়পত্র অনুযায়ী জুলহাসের জন্ম ১৯৭৩ সন বয়স ৪৮ বছর। ভোটার আইডি কার্ডে বয়স কম লিপি হওয়ায় বয়স্ক ভাতার কার্ড পাচ্ছেন না ধারার হাট গ্রামের বৃদ্ধ মো. জুলহাস শেখ। জাতীয় সনদ অনুযায়ী ৪৮ বছর বয়সের ব্যক্তিকে বয়স্ক ভাতা দেয়া হয়না। খোঁজ নিয়ে জানাযায় মোঃ জুলহাস শেখ তার একমাত্র ছেলে মোঃ সাইদুল ইসলাম ভোটার আইডি কার্ড অনুযায়ী তাদের বাবা-ছেলের জম্ম একই দিনে। মোঃ জুলহাস শেখের বাড়ি লৌহজং উপজেলার বৌলতলী ইউনিয়নের ৫ নং ওয়ার্ডের ধারার হাট গ্রামে। জুলহাস শেখ বলেন,কত মানুষের কাছে গেলাম। কত মানুষ আশ্বাস দিল। আমার নাকি কাগজে বয়স্ক ভাতা পাবার বয়স হয়নাই, আর কত বয়স হলে বয়স্ক ভাতা পাব? জুলহাসের ছেলের স্ত্রী সেলিনা বেগম জানান আমার শ্বশুরের কাগজ পত্র ঠিক করার জন্য ইউনিয়ন পরিষদ ও উপজেলা পরিষদে দৌড়াদৌড়ি করে ও কোন প্রতিকার পাইনি এই অফিসে গেলে বলে ঐ অফিসে যান। বৌলতলী ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) ৫ নং ওয়ার্ডের সদস্য মোঃ বাদল মৃধা বলেন,জুলহাস শেখের বয়স প্রায় ৮৫ বছর কিন্তু জাতীয় পরিচয়পত্রে তার বয়স কম হওয়ায় বয়স্ক ভাতা থেকে বঞ্চিত হয়েছেন। তার জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন করে জমা দিলে অবশ্যই বয়স্ক ভাতার আওতায় আনা হবে।
উপজেলা সমাজসেবা অফিস থেকে প্রাপ্ত তথ্য মতে ১৯৯৮ সালে চালু হওয়া থেকে এ পর্যন্ত যারা বয়স্ক ভাতা পেয়েছিলেন তাদের মধ্য থেকে শতকরা ১০ জন বাদ পড়েছেন। উপজেলার দশটি ইউনিয়নে গড়ে ১২০/১৩০ জন করে বাদ পড়েছেন। এ বিষয়ে উপজেলা সমাজসেবা অফিসার মোঃ আব্দুস সালাম বলেন, শুধু তিনিই নন একই সমস্যায় উপজেলায় বহুলোক বয়স্ক ভাতা থেকে বঞ্চিত হয়েছেন। অনেকের বয়স হয়েছে দেখলেই বোঝা যায় কিন্তু জাতীয় পরিচয়পত্রে জন্ম তারিখ ভুলের কারণে তারা বয়স্কভাতা থেকে বাদ পড়তে হয়েছে। তিনি আরো জানান এ ব্যাপারে নির্বাচন অফিসারের সাথে আলোচনা করে কিভাবে তাদের এই সমস্যা থেকে সমাধান করা যায়, সেই ব্যবস্থা করা হবে।

Leave a Reply