শফিকুল ইসলাম
মোহনপুর (রাজশাহী) প্রতিনিধি:

রাজশাহীর মোহনপুর উপজেলায় পরকিয়ায় বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীর মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। স্থানীয় বিভিন্ন সুত্র মতে উপজেলার কামারপাড়া টাংগন গ্রামের এক গৃহ বধুর প্রেমের বন্ধনের কারনে ওই শিক্ষার্থীর মৃত্যু হয়েছে বলে ধারনা করা হচ্ছে।

রোববার দুপুরে কামারপাড়া টাংগন গ্রামের আমের বাগান হতে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী শফিউল ইসলাম সাফির (২৬) মরদেহ উদ্ধার করেছে মোহনপুর থানা পুলিশ। নিহত শিক্ষার্থী উপজেলার রায়ঘাটি ইউনিয়নের কামারপাড়া টাংগন গ্রামের চুন ব্যবসায়ী সাইদুর রহমানের বড় ছেলে। শাফিউল ইসলাম রাজশাহী কলেজে (হিসাব বিজ্ঞান) মাস্টার্সে অধ্যায়নরত।

নিহতের পারিবারিক সুত্রে জানাযায়, সে গতকাল শনিবার (২৩ই জানুয়ারি) ৯.৩০টার সময় কামারপাড়া বাজারে যাবে বলে তার নিজ বাড়ি থেকে বের হয়ে আসে। অনেক সময় অতিবাহিত হওয়ার পর পরিবারের লোকজন তার নাম্বারে একাধিকবার ফোন দেয় ও অনেক খোঁজাখুজি করে নিহতের খোঁজ পায়নি। তবে রোববার সকালে বাড়ির পাশের একটি আমবাগানে লোকজন শাফিউলের উলঙ্গ মরদেহ দেখতে পেয়ে বাড়ির লোকদের খবর দেয়। সরজমিনে মৃত শাফিউলের গলায় রসি ছিল এবং মাথায় সামনে ও পেছনে ধারালো অস্ত্রের আঘাতের চিহৃ ছিল। আইন শৃঙ্খলা বাহীনি তার পকেট থেকে ৪টি কনডম (প্যানথার কোম্পানীর) পেয়েছে যার মধ্যে একটি অব্যবহারিত ছিল।

অনুসন্ধানে জানযায়, নিহতের পাশের তিন বাড়ির পরে আব্দুল বারি (৪৩) এর স্ত্রীর (২৫)সাথে গত ২ বছরের প্রেমের সর্ম্পক ছিল। বিষয়টি তার স্বামী জানতে পারে, যে কারনে ওই শিক্ষার্থী মৃত্যু হয়েছে বলে ধারনা করছে স্থানীয়রা।

মোহনপুর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) তৌহিদুর রহমান বলেন, কে বা কারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে বা এ ঘটনার সাথে জড়িত এ বিষয়ে কোনো সুনির্দিষ্ট তথ্য-প্রমাণ পাওয়া যায়নি। তবে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের কর্মকর্তারা বিষয়টি তদন্ত করছেন। প্রাথমিক ভাবে আব্দুল বারি ও তার স্ত্রীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় আনা হয়েছে। তদন্ত শেষে মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হবে বলে, জানান মোহনপুর থানা কর্মকর্তা ওসি তৌহিদুল ইসলাম।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *