মোঃ রাশেদুল ইসলাম মিঠাপুকুর প্রতিনিধি:
রংপুরের মিঠাপুকুরের বালুয়া মাসমপুর এলাকায় প্রতিবেশীর ঘরের মাটি খুঁড়ে রহিমা খাতুন (১০) নামের এক শিশুর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার (২৭ মে) দুপুর ১২টায় একই এলাকার রাজা মিয়ার বাড়ি থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। বালুয়া মাসুমপুর এলাকার স্থানীয় এলাকার বাসিন্দা ও পরিবারের সদস্যদের অভিযোগ শিশু রহিমাকে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে এবং যার বিছানার নিচে মাটির গর্তে লাশ পুতে রাখা হয়েছিলো সেই ধর্ষক। এরআগে বুধবার (২৬ মে) সন্ধ্যায় দোকানে চিপস কিনতে গিয়ে নিখোঁজ হয় রহিমা।নিহত রহিমা একই এলাকার রবিউল ইসলামের মেয়ে। পুলিশ জানায়, বুধবার সন্ধ্যায় রহিমা তার মায়ের কাছ থেকে ১০ টাকা নিয়ে পটেটো চিপস কেনার জন্য দোকানে যায়। এরপর আর বাড়ি ফেরেনি সে। সারারাত অনেক খোঁজাখুজির পরও তাকে পাওয়া যায়নি। এদিকে পরদিন বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৬টায় একই এলাকার রাজা মিয়ার ছেলে শাহিন মিয়ার (২০) ঘরের মাটি খোঁড়া দেখতে পায় বাড়ির লোকজন। পরে বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হয়। একপর্যায়ে রহিমার বাড়ির লোকজনও ঘটনাটি জানতে পারেন। এরপর রহিমার পরিবারের লোকজন সেখানে গিয়ে মাটি সরাতেই একটি হাত দেখতে পায়। তারা নিশ্চিত করেন এ হাত রহিমার। পরে পুলিশকে খবর দিলে সকাল সাড়ে ১০টায় তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। রংপুর জেলা পুলিশের সহকারী পুলিশ সুপার (সার্কেল-ডি) মো. কামরুজ্জামান বলেন, ধারণা করা হচ্ছে, প্রাথমিকভাবে মেয়েটিকে ধর্ষণ বা ধর্ষণের চেষ্টা করা হতে পারে। মেয়েটির চিৎকারে ধরা পড়ার ভয়ে হত্যার পর মরদেহ ঘরের খাটের নিচে পুঁতে রাখা হয়। তিনি আরও বলেন, এ ঘটনায় একজনকে আটক করা হয়েছে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *